পশ্চিমবঙ্গের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের ডাকা বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন না রাজ্যের মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার চিঠি লিকে কেন্দ্রীয় সরকারকে জানিয়েছেন তিনি। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলার পরিস্থিতি নিয়ে আগামী ১৪ ডিসেম্বরের বৈঠক ডেকেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ। ওই বৈঠকে উপস্থিত হওয়ার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে রাজ্যের মুখ্যসচির আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় ও রাজ্যপুলিশের ডিজিকে। একই সঙ্গে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর লেখা চিঠিতে বিজেপি নেতা জেপি নাড্ডার গাড়িতে হামলার কথাও উল্লেখ করেছেন। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন গোটা বিষয়টি যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছে কেন্দ্রীয় সরকার। 

রাজ্যের মুখ্যসচিব জানিয়েছেন রাজ্যের পক্ষ থেকে নিরাপত্তার বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছিল। ডিআইজি রেঞ্জের এক পুলিশ আধিকারিকের ওপর নিরাপত্তার পুরো দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। তাঁর অধীনে কাজ করেছিলেন, ৪ জন অ্যাডিশনাল পুলিশ অফিসার, ৮ জন ডেপুটি পুলিশ অফিসার, ১৪ জন ইনস্পেক্টর পদমর্যাদার আধিকারিক।  এছাড়ানও মোতায়েন করা হয়েছিল ৭০ জন এসআই অথবা এএসআই, ৪০ জন আরপিএফ, ২৫৯ কনস্টেবল, ৩৫০ জন পুলিশ কর্মী। একই সঙ্গে আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারকে জানিয়েছিলেন নাড্ডা জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পান। সেই কারণে তাঁর নিরাপত্তার পুরো দায়িত্বে কেন্দ্রের। রাজ্য নাড্ডার সফরের জন্য একটি বুলিট প্রুফ গাড়ি বরাদ্দ করেছিল। 

একই সঙ্গে আলাপন বন্ধ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পেলেও শ্রী জেপি নাড্ডার কনভয়টি ছিল তুলনামূলকভাবে অনেকটাই বড়। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন এই হামলার ঘটনার বিরুদ্ধে ইতিমধ্যেই তদন্ত শুরু করে দিয়েছে রাজ্যপুলিশ। এখনও পর্যন্ত সাত জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছে।