একদিন পরও থমথমে দিনহাটা। বুধবারই এক পশু হাসপাতালের বারান্দা থেকে মিলেছিল বিজেপির শহর মণ্ডল সভাপতি অমিত সরকারের ঝুলন্ত দেহ। যা নিয়ে নির্বাচনের আগে, দফায় দফায় পথ অবরোধ, মিছিল, সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়েছিল এই জেলা শহর। এদিন, তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হল। এসেছিলেন, বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা তথা রাজ্যের সহ-পর্যবেক্ষক
কৈলাশ বিজয়বর্গিয়ও। আর সর্বক্ষণই উপস্থিত ছিলেন দিনহাটার বিজেপি প্রার্থী তথা কোচবিহারের সাংসদ নীশিথ প্রামাণিক।

অমিত সরকারের শেষকৃত্যে অংশ নিয়ে কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, তাঁরা ঘটনার সিবিআই তদন্ত চান। বিজেপির দাবি, দিনহাটার বিদায়ী বিধায়ক তথা তৃণমূল প্রার্থী উদয়ন গুহর আশ্রীত দুষ্কৃতীরাই অমিত সরকার-কে হত্যা করে ঝুলিয়ে দিয়েছে। এর আগে হেমতাবাদের সাংসদকে ঠিক যে কায়দায় খুন করা হয়েছিল, দিনহাটার মণ্ডল সভাপতিকেও সেইভাবেই খুন করা হয়েছে। দুটি ক্ষেত্রেই নিহতের পা মাটি স্পর্শ করে ছিল। বুধবার, সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছিলেন নীশিথ প্রামাণিকও।

যদিও পুলিশের ময়না তদন্তের রিপোর্ট অনুযায়ী, আত্মহত্যাই করেছেন ওই বিজেপি নেতা। এমনকী একটি সুইসাইড নোটও পাওয়া গিয়েছে। সেখানে তিন ব্যক্তির নামও নিয়েছেন প্রয়াত অমিত। এমনটাই দাবি পুলিশের। এদিন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র অভিযোগ সম্পর্কে উদয়ন গুহ তাঁকে 'তোতাপাখি' বলে কটাক্ষ করেছেন। তাঁর মতে স্থানীয় নেতারা তাঁকে যা শিখিয়ে দিয়েছেন, তিনি তাই বলছেন। যে তিনজনের নাম রয়েছে সুইসাইড নোটে তাঁদের বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করলেই আসল ঘটনা উঠে আসবে, এমনটাই দাবি করেছেন তিনি।