তাপস দাস: পশ্চিম বর্ধমানে বিজেপি জিততে চলছে। তৃণমূল থেকে বিজেপি-তে যোগ দেওয়া অভিজিত আচার্য বলছেন, এমন কোনও ইস্যু নেই, যেখানে তৃণমূল মানুষের সমর্থন পেতে পারে। অভিযোগ, কাটমানি থেকে তোলাবাজি, কেন্দ্রের প্রকল্প রাজ্যের নামে চালানো, এমনকী সাম্প্রদায়িক সুড়সুড়ি নিয়ে। দাবি, মানুষের কাছে ঘুরে ঘুরে সমীক্ষা করলেই এ নিয়ে সমস্ত বেরিয়ে পড়বে। 

অভিজিত বলেছেন, রাজ্য সরকার বাংলাবাসীর জন্য কার্যত কিছুই করেনি। স্বচ্ছ ভারত প্রকল্পের অর্থ ব্যয় করে তার নাম দেওয়া হয়েছে নির্মল বাংলা, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার বাড়ি তৈরি করে তার ছবি আপলোড করার পর, ছবি পাল্টে বাংলার বাড়ি শিরোনাম দেওয়া হয়েছে। পানীয় জল দেওয়া হয়েছে মোদী সরকারের অমৃত প্রকল্পের টাকায়। আসানসোলের উন্নয়ন প্রসঙ্গে অভিজিতের বক্তব্য, বাম আমলেও কিছু কারখানা ছিল। তারা এই আমলে ঝাড়খণ্ড চলে গিয়েছে। সরকার বদলালে তারা ফিরবে বলে খবর রয়েছে অভিজিতের কাছে। 

কয়লা কেলেংকারি নিয়ে প্রতিবাদী হয়েছিলেন অভিজিত। তিনি বলেছিলেন, বেআইনি কয়লা তোলার জেরে সমস্যা হচ্ছে। সমীক্ষার জন্য, পাইলট প্রকল্পের জন্য কেন্দ্র যে টাকা দিয়েছে, তা আত্মসাত করা হয়েছে। জল প্রকল্পের জন্য যে অর্থ এসেছিল, অভিজিতের অভিযোগ সেখান থেকেও অর্থ চুরি হয়েছে। তিনি বলেন, ৬৫ লক্ষ টাকার পাইপলাইন বসানো হয়েছে বলে দেখানো হয়েছে, কিন্তু কোনও পাইপ বসেনি। তৃণমূলত্যাগীর দাবি, এর সমস্ত ফাইল প্রস্তুত, বিজেপি সরকার রাজ্যে স্থাপিত হলেই তদন্ত শুরু হয়ে যাবে। যে তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিজিত ব্যাপক সরব হয়েছেন, সেই উজ্জ্বল চট্টোপাধ্যায় সম্পর্কে তাঁর অভিযোগ, তিনি সাড়ে চার বছর অসুস্থ থাকেন, ভোটের আগে ৬ মাস সুস্থ হয়ে যান। অভিজিত বলেছেন, ফরোয়ার্ড ব্লক থেকে তৃণমূলে আসার পর উজ্জ্বল এলাকায় একচ্ছত্রভাবে রাজত্ব করতে থাকেন। প্রতিদিন সন্ধ্যার পর সংলগ্ন বাইপাসে কেন উজ্জ্বল খালি হাতে পৌঁছন এবং সেখান থেকে বেরোনোর সময়ে কেন তাঁর হাতে ফাইল থাকে, সে ফাইলে কিসের হিসেব নিকেশ থাকে, এ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অভিজিত। 

পশ্চিম বর্ধমানে ৯টা আসনের মধ্যে ৯টাই বিজেপি পাবে এ বিষয়ে অভিজিত নিশ্চিত হলেও. তিনি বলছেন, চার জায়গায় আব্বাস সিদ্দিকীর সেকুলার ফ্রন্টের সম্ভাবনা রয়েছে। তবে মলয় ঘটকের পরাজয় সম্পর্কে তিনি নিশ্চিত। অভিজিতের বক্তব্য, জিতেন্দ্র তেওয়ারি তৃণমূল ছাড়ার পর, এলাকার তৃণমূল বাস্তবত নেতাশূন্য। তাঁদের নেতা নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে তাঁরা বাংলায় সরকার গঠন করবেন বলে আশাবাদী এই সদ্য দলবদল করা নেতা।