বিজেপির মিঠুন চক্রবর্তীর পাল্টা এবার তৃণমূল কংগ্রেসের অন্যতম প্রচার অস্ত্র হতে চলেছেন সমাজবাদী পার্টির সাংসদ তথা অভিনেত্রী জয়া বচ্চন। রবিবার সন্ধ্যে সাড়ে ৭টা নাগাদ কলকাতা বিমান বন্দরে নেমেছেন তিনি। সোমবার থেকেই  তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে প্রচার শুরু করবেন অমিতাভ জায়া জয়া বচ্চন। সূত্রের খবর বিজেপির সাংসদ প্রার্থী বাবুল সুপ্রিয় বিরুদ্ধেই প্রচার শুরু করবেন তিনি। জয়া বচ্চন টালিগঞ্জের তিন বারের বিধায়ক অরূপ বিশ্বাসের হয়েও প্রচার করবেন। 

এদিন কলকাতা বিমান বন্দরে জয়া বচ্চনকে স্বাগত জানান তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বভারতীয় মুখপাত্র ডেরেক ওব্রায়ন ও রাজ্যের মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। রীতিমত রাজকীয়ভাবেই তৃণমূলের প্রমিলা বাহিনী জয়া বচ্চনকে বিমান বন্দরে স্বাগত জানিয়েছিল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বচ্চন পরিবারের সম্পর্ক যথেষ্ট ভালো। এর আগেই একাধিকবার মুখ্যমন্ত্রীর অনুরোধে রাজ্যে এসেছেন তাঁরা। জন্মসূত্রে জয়া বচ্চনও বাঙালি। কিন্তু কর্মসূত্রে তিনি দীর্ঘদিন ধরেই মুম্বইয়ের বাসিন্দা। ডেরেক জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়াতেই জয়া বচ্চন এসেছেন মুম্বই থেকে। আর  সেই কারণে তিনি তৃণমূল তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞ বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

করোনা মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ রুখতে প্রধানমন্ত্রীর পাঁচটি দাওয়াই, দেখে নিন কী কী বললেন মোদী ...

Love Story, ৫০ বছর পর রাজস্থানের ভুতুড়ে গ্রামের বৃদ্ধ দারোয়ান ফিরে পেলেন তাঁর প্রেমিকাকে

সমাজবাদী পার্টির সাংসদ জয়া বচ্চন। কয়েকদিন আগেই সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব জানিয়েছিলেন, বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ঘৃণার রাজনীতি করছে। আর সেই কারণে বিজেপির বিরুদ্ধে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে তিনি দাঁড়াতে চান।  অখিলেশ যাদবের কথায় 'মমতা দিদির হাত শক্ত করতে আর বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করতে আমাদেরও দায়িত্ব রয়েছে।' আর অখিলের এই মন্তব্যের পরেই জয়া বচ্চন আসছেন কলকাতায় ভোট প্রচারে। আগামিকাল জয়া বচ্চন তৃণমূল ভবনে যাবেন। বেলা সাড়ে তিনটে নাগাদ তাঁরে সংবর্ধনা জানাবে তৃণমূলের সংসদীয় দল। তারপর সেখানেই তিনি সাংবাদিক বৈঠকও করবেন। আর একে এক সব প্রশ্নেরও উত্তর দেবেন একবার বাংলার ধন্যি মেয়ে।