আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেস ও বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য নতুন স্লোগান দিলেন সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি বলেন লুঠপাটের সরকার নয়, জাতপাতের সরকার নয়। বাংলায় চাই জাতপাতের সরকার। সংযুক্ত মোর্চার ব্রিগেড থেকে তিনি কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, নিজের চেয়ার বাঁচাতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একাধিকবার বিজেপির সঙ্গে সমঝতা করেছেন। আগামী দিনেও সমঝতা করবেন। বাংলার বিজেপির এই বাড়বাড়ন্তের জন্য রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস সরকার দায়ি বলেও অভিযোগ করেন সিপিএম নেতা। সীমারাম ইয়েচুরি বলেন এই রাজ্যে যদি ত্রিশঙ্কু সরকার হয় তাহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিজেপির সঙ্গে হাত মেলাতে দ্বিধা করবেন না। কারণ এটাই তাঁর চরিত্র বলেও মন্তব্য করেন তিনি। 

ভাষণের শুরুতে সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, কেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ সংবিধান মানেন না। মোতেরার সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়ামের নাম বদলো নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম রাখারও তীব্র সমালোচনা করেন। দেশের জুড়ে বেকারত্ব বৃদ্ধি, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি নিয়েও সমালোচনায় সরব হন কেন্দ্রের। তিনি বলেন এখানে সরদা নারদা হচ্ছে। কেন্দ্রে হিন্দু মুসলিম হচ্ছে। ভোটের সময় কেন অর্থ সাহায্য- তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন সীতারাম ইয়েচুরি। তিনি বলেন কৃষক আন্দোলনের জন্য সংযুক্ত মোর্চার তৈরি হয়ছে। আর বাংলায় বিজেপি ও তৃণমূলকে রুখতে তৈরি হয়েছে সংযুক্ত মোর্চা। এই মোর্চা আগামী দিনে ব্যাপ্তি পাবে বলেও আশা প্রকাশ করেন। 

অন্যদিকে সিপিআই নেতা ডি রাজা কেন্দ্রের পাশাপাশি রাজ্যের তৃণমূল কংগ্রেস সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। কৃষিক আন্দোলন নিয়ে সরব হন তিনি। বলেন গান্ধী জি বেঁচে থাকলে আজ বলতেন মোদী আর অমিত শাহকে সুমতি দিন। ভোটের বাংলায় মোদী, নাড্ডা, শাহ বারবার বাংলায় আসছেন। কিন্তু বিগ্রেড থেকে বোঝা যাচ্ছে বাংলার মানসিকতা।