প্রার্থী নিয়ে আবারও প্রকাশ্যে এল তৃণমূল কংগ্রসের দলীয় দ্বন্দ্ব। এবার ঘটনাস্থল মুর্শিদাবাদ জেলার জলঙ্গি এলাকা। কার্যত সিপিএম ছেড়ে তৃণমূলে আসা বিধায়ক আব্দুর রাজ্জাককে পুনরায় প্রার্থী করায় দলেরই একাংশ ক্ষোভে ফেটে পড়ে। তাঁর প্রার্থী পদ প্রত্যাহারের দাবিতে প্রকাশ্যেই চলে বিক্ষোভ। দাহ করা হয় তাঁক কুশপুতুলও। এমনকি তৃণমূল সুপ্রিমো ঘোষিত প্রার্থীকে চোর, কাটমানি খোর, সন্ত্রাসবাদী স্লোগানও দেওয়া হয়।  মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষিত প্রার্থীর বিরুদ্ধে স্লোগান দিলেও তাঁরা দলনেত্রীর পাশে থাকারও বার্তা দিয়েছেন।পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নামে জেলা নেতৃত্ব। 

সূত্রের খবর জলঙ্গি এলাকায় প্রভাব বিস্তার নিয়ে আব্দুর রাজ্জাকের সঙ্গে দীর্ঘ দিনের বিবাদ রয়েছে  দাপুটে তৃণমূলের মহিলা নেত্রী তথা মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সদস্য সৈয়দ রাফিকা সুলতানার। তাঁরই নেতৃত্বে পুরে বিক্ষোভ সংঘটিত হয়েছে বলেও সূত্রের খবর। জলঙ্গি বিধানসভা কেন্দ্রে দীর্ঘদিন ধরে কংগ্রেস থেকে তৃণমূলের আসা বিধায়ক রাজ্জাক বনাম স্থানীয় তৃণমূলের ওই মহিলা নেত্রী রাফিকা সুলতানা ও তার অনুগামীদের মধ্যে দ্বৈরথ চলে আসছে। প্রসঙ্গত  রাজ্জাক এর পরিবর্তে এলাকায় রাফিকা সুলতানাকে প্রার্থী করার দাবি জানিয়ে আসছে জেলা নেতৃত্বের কাছে। কিন্তু কলকাতা থেকে প্রার্থী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করা প্রার্থী তালিকায় নাম নেই রফিকার। আর সেই কারণেই রফিকার অনুগামীরা বিক্ষোভ দেখাচ্ছে বলে সূত্রের খবর। মনে আছে নন্দীগ্রামের বাম বিধায়ক ইলিয়াসকে, বাবার সম্মান ফেরাতে এবার প্রার্থী তাঁর ছেলে সাদ্দাম হসেন ...

বাংলাসহ ৫ রাজ্যে বন্ধ বাইক ব়্যালি, নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন ...

রবিবার সন্ধ্যায় ড্যামেজ কন্ট্রোলে' মুর্শিদাবাদ লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ তথা জেলা সভাপতি আবু তাহের খানের নেতৃত্বে রুদ্ধদ্বার বৈঠক ডাকা হয় বলেই বিশেষ সূত্রের খবর। তবে বৈঠকের ফলাফল এখনও পর্যন্ত জানা যায়নি।  এই ব্যাপারে নেত্রী রাফিকা সুলতানা সাফ কথা,"কোনভাবেই সাধারণ মানুষ গ্রামের লোকজন সিপিএম থেকে তৃণমূলে আসা রাজ্জাক হোসেনকে প্রার্থী বলে মেনে নেবে না এটা এলাকার স্বতঃস্ফূর্ত বিক্ষোভ"। যদিও তৃণমূলের জেলা নেতৃত্ব এই নিয়ে এখনই কোনো মন্তব্য করতে চাইনি।