আরব সাগরের উপর দিয়ে একটু একটু করে গুজরাত উপকূলের দিকে এগোচ্ছে ঘুর্ণিঝড় মহা। হাওয়া অফিস জানিয়েছে সম্ভবত বৃহস্পতিবার ভোরে গুজরাত উপকূলে আছড়ে পড়বে এই ঘূর্ণিঝড়। পশ্চিম উপকূলে এই অবস্থার মধ্যেই ভারতের পূর্ব উপকূলে বঙ্গোপসাগরেও ঘনাচ্ছে আরও এক ঘুর্ণিঝড়। আপাতত গভীর নিম্নচাপ হিসেবে সাগরদ্বীপ থেকে ৯৬০ কিলোমিটার দক্ষিণে থাকলেও, আগামী কয়েকদিনে তা অতি জোরালো ঘূর্ণিঝড় হয়ে আছড়ে পড়তে চলেছে পশ্চিমবঙ্গে। ছাড় পাবে না ওড়িশার উত্তরাংশের উপকূল এবং বাংলাদেশও। দিল্লির মৌসম ভবন থেকে এই সতর্কতা জারি করা হয়েছে।

মৌসম ভবনের পূর্বাভাস বলছে ৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় ওড়িশার উত্তর অংশের উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে এই ঘুর্ণিঝড়টি। সেই সময় বাতাসের গতিবেগ থাকবে ঘন্টায় ১৪৫ কিলোমিটার। তারপর তা ১২০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টা বেগে প্রবেশ করবে পশ্চিমবঙ্গে। তারপর উত্তর-পূর্বগামী হয়ে প্রবেশ করবে বাংলাদেশে।

শুধু ঝড় নয় এর প্রভাবে এই সপ্তাহান্তে ভারী বৃষ্টি ও প্রবল সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাসও দেখা যাবে। পশ্চিমবঙ্গের তিন জেলা - পূর্ব মেদিনীপুর ও দুই ২৪ পরগণায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হতে পারে ৯ নভেম্বর তারিখে। এছাড়া ৭,৮ ও ৯ - তিনদিনই উপকূলে সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস থাকবে। বিশেষ করে ৯ তারিখ উপকূলবর্তী নিচু এলাকাগুলিতে সমুদ্রের জল উঠে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

৭ নভেম্বর সন্ধ্যার মধ্যেই মৎসজীবীদের সমুদ্র থেকে ফিরে আসতে বলা হয়েছে। হুগলি ও সাগরদ্বীপ বন্দরেও সতর্কতা জারি করা হয়েছে।