পশ্চিমবঙ্গে আগামী বিধানসভা নির্বাচনে দুই তৃতীয়াংশ আসনে জিতে ক্ষমতা দখল করবে বিজেপি। একটি সর্বভারতীয় হিন্দি নিউজ চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে এমনই দাবি করলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। একই সঙ্গে তিনি স্পষ্ট করে দিয়েছেন, এ রাজ্য আগামী বিধানসভা নির্বাচনে এনআরসি- কে একটি ইস্যু করতে চলেছেন তারা। 

আত্মবিশ্বাসী অমিত শাহ বলেন, 'লোকসভা নির্বাচনের আগে আমি যখন বলেছিলাম বাংলায় বিজেপি কুড়িটি আসনে জিতবে, তখনও কেউ বিশ্বাস করেনি। কিন্তু আমরা আঠারোটি আসনে জিতেছি, আর তিনটি আসনে পাঁচ থেকে সাত হাজার ভোটের ব্যবধানে হেরেছি। তাও এত অত্যাচার, রিগিং হওয়ার পরেও এরকম ফল করতে পেরেছি আমরা। এতদিন বাংলার মানুষের সংশয় ছিল যে বিজেপি ওখানে জিততে পারবে কি না। কিন্তু লোকসভা ভোটের ফলাফলের পরে মানুষের মন থেকে সেই সংশয়ও দূর হয়ে গিয়েছে। বাংলায় আমরা দুই তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাব।'

আরও পড়ুন- অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাতের পর কি রাজনীতিতে পা, স্পষ্ট জবাব দিলেন সৌরভ

এর পরেই অমিত শাহকে প্রশ্ন করা হয়ে, বাংলায় বিজেপি-র নির্বাচনী মুখ বা মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী হিসেবে কাকে তুলে ধরা হবে? এই প্রশ্নের অবশ্য সাবধানী জবাব দিয়েছেন বিজেপি সভাপতি। তিনি বলেন, 'বাংলায় দলের মুখ কে হবেন, এ নিয়ে এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। কাউকে মুখ্যমন্ত্রী পদপ্রার্থী করা হবে কি না, সেটাও সিদ্ধান্ত হয়নি। কিন্তু বাংলার মানুষ ঠিক করে নিয়েছেন, এই সরকারকে তাঁরা ক্ষমতাচ্যুত করবেন। আর আমরা ইতিমধ্যেই সবথেকে শক্তিশালী বিরোধী দল হিসেবে সেখানে উঠে এসেছি।'

এনআরসি নিয়ে বিজেপি-র বিরুদ্ধে বাংলায় প্রচার শুরু করে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। তাতে অবশ্য এতটুকু পিছু হটছেন না বিজেপি সভাপতি। তিনি সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, অসমের পরে বাংলা- সহ গোটা দেশেই এনআরসি কার্যকর করা হবে। ২০২৪ সালে পরবর্তী লোকসভা নির্বাচনের আগেই যে এই কাজ শেষ করা হবে, তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। বাংলাতে শাসক দল যে প্রচারই করুক না কেন, এ রাজ্য ক্ষমতা দখলে এনআরসি-কে যে ভোটের হাতিয়ার করা হবে, রাখঢাক না করেই তা জানিয়ে দিয়েছেন অমিত শাহ। 

কয়েকদিন আগেই তাঁর সঙ্গে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সাক্ষাৎ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা ছড়িয়েছিল। অমিত শাহ এই সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, সৌরভের সঙ্গে রাজনীতি নিয়ে তাঁর কোনও আলোচনা হয়নি। এই মুহূর্তে সেরকম কোনও সম্ভাবনাও নেই বলে স্পষ্ট করে দিয়েছেন অমিত শাহ।