প্রায় দেড় বছর আগে শেষ হয়েছে পুরবোর্ডের মেয়াদ। তার পর থেকে বালুরঘাট পৌরসভার কাজ চালাচ্ছেন সরকারের নিয়োগ করা প্রশাসক। পুরপ্রধান বিহীন অবস্থায় এ ভাবে দিনের পর দিন চলতে থাকায় বালুরঘাট পুরসভাকে অনাথ আশ্রম হিসেবে ঘোষণা করে প্রতিবাদ জানাল বিজেপি। 

রবিবার সকালে বিজেপি-র বালুরঘাট শহর কমিটির ডাকে বিজেপি কর্মীরা কোর্ট মোড় এলাকা থেকে মিছিল করে বালুরঘাট পুরসভার সামনে আসেন। ব্যান্ড, কাসর, শঙ্খ নিয়ে মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিল। পুরসভার মূল গেটে অনাথ আশ্রম লেখা ব্যানার ঝুলিয়ে দেন তাঁরা। ফুলের মালা, বেলুন দিয়ে পুরসভার গেট সাজানো হয়। পোড়ানো হয় আতসবাজি। ফিতে কেটে অনাথ আশ্রমের প্রতীকী উদ্বোধনও সাড়া হয়। 

বিজেপি- র বালুরঘাট শহর কমিটির সভাপতি সুমন বর্মণ এদিন অভিযোগ করে বলেন, 'দীর্ঘ দেড় বছর ধরে বালুরঘাটবাসীকে অনাথ বানিয়ে রেখেছে তৃণমূল কংগ্রেস। না আছে বালুরঘাট পুরসভার চেয়ারম্যান, না আছে কাউন্সিলাররা, শুধু পুরসভায় তৃণমূলের চোরেদের আনাগোনা আছে। পশ্চিমবঙ্গ বাদে সমগ্র ভারতবর্ষে এমন কোনও পুরসভা নেই যেখানে ৪৫৩ দিন ধরে চেয়ারম্যান নেই। সেই কারণেই আমরা ভারতীয় জনতা পার্টি-র পক্ষ থেকে এই পুরসভাকে অনাথ আশ্রম হিসাবে ঘোষণা করলাম। সুমনবাবু জানিয়েছেন, বৃদ্ধ ভাতা- বিধবা ভাতার মতো অনাথ ভাতা চালু করার জন্য জেলাশাসকের কাছে আবেদন করবেন তাঁরা। বিজেপি নেতাদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে পুরবোর্ড না থাকায় চরম হয়রানির মুখে পড়েছেন পুর এলাকার বাসিন্দারা। ব্য়াহত হচ্ছে নাগরিক পরিষেবাও। 

বালুরঘাটের মতো রাজ্যের বেশ কিছু পুরসভাতে এ ভাবেই প্রশাসক বসিয়ে রেখেছে রাজ্য সরকার। চলতি বছরেই রাজ্যে পুরভোট রয়েছে। সেই সময়ই বাকি পুরসভাগুলির সঙ্গে প্রশাসকের অধীনে থাকা পুরসভাগুলিতেও নির্বাচন হওয়ার কথা।