তৃণমূল কংগ্রেস ছাড়ার পর থেকেই তাঁর মোবাইল ফোনে আড়ি পাতছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, ফোন ট্যাপিংয়ের জন্য মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেআইনিভাবে আলাদা দফতর খুলেছেন বলেও এ দিন অভিযোগ করেন মুকুল। কটাক্ষ করে তিনি বলেন, 'ফোন ট্যাপিংয়ের গুরুঠাকুর হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।'

কেন্দ্রীয় সরকার তাঁর ফোনে আড়ি পাতছে বলে কয়েকদিন আগেই অভিযোগ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এ নিয়ে মমতার বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন বিজেপি নেতারা। এ দিন তাঁদের থেকেও একধাপ এগিয়ে মমতার বিরুদ্ধে আরও বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন মুকুল। 

বিজেপি নেতা এ দিন পাল্টা অভিযোগ করেন, ইজরায়েলি সংস্থার কাছ থেকে ফোনে আড়ি পাতার যন্ত্র কিনে এনে কলকাতা এবং দিল্লিতে বসানোর ব্যবস্থা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মুকুলের দাবি, কারও ফোনে আড়ি পাততে গেলে স্বরাষ্ট্র সচিবের অনুমতির প্রয়োজন হয়। কিন্তু সেসবের তোয়াক্কা না করেই ফোনে আড়ি পাতার জন্য পৃথক দফতর খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। অসাংবিধানিকভাবে কয়েকজনকে নিয়োগ করে সেই দফতর চালানো হচ্ছে বলেও এ দিন অভিযোগ করেন মুকুল রায়। 

মুকুল বলেন, 'যে দিন থেকে তৃণমূল ছেড়েছি, তার পর দিন থেকে আমার এবং আমার সহকর্মীর ফোন ট্যাপ করা হয়। এটা সবাই জানে। তৃণমূলের কাউকে ফোন করলে বলে, দাদা তোমার ফোন তো ট্যাপ করা হয়। তাঁরা কথা বলতে চান না। আজকে যাঁরা ফোন ট্যাপিং নিয়ে শোরগোল করছেন, তাঁরা প্রমাণ নিয়ে হাইকোর্টে মামলা করুন না। ফোন ট্যাপিংয়ের পথ প্রদর্শক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজকেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সবার ফোন ট্যাপ করছেন।'