সদ্য সাংসদ হয়েছেন। আর তাতেই যেন অতি উৎসাহিত হয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে প্রকাশ্যেই অশালীন মন্তব্য করে বসলেন রানাঘাটের বিজেপি সাংসদ জগন্নাথ সরকার। মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে 'পেত্নী' বলে কটাক্ষ করলেন তিনি। মঙ্গলবার নদিয়ার শিমুরালিতে দলীয় সভায় এই মন্তব্য করেন জগন্নাথবাবু।

এ দিন বক্তব্য রাখতে গিয়ে জয় শ্রীরাম বিতর্ক নিয়েই মুখ্যমন্ত্রী কটাক্ষ করতে শুরু করেন জগন্নাথ সরকার। মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, রাম নাম  কানে গেলে মুখ্যমন্ত্রীর গালাগাল মনে হছে। হিন্দু শাস্ত্রে ভুত তাড়াতে রাম নাম এর ব্যবহার বহু পুরোনো। রত্নাকর দস্যু যেমন রাম নাম বলতে পারতেন না, তেমন মুখ্যমন্ত্রীও রাম নাম সহ্য করতে পারছেন না বলেও মন্তব্য করেন বিজেপি সাংসদ। পাপের ফলেই মুখ্যমন্ত্রীর এমন মনে হচ্ছে বলেও দাবি করেন জগন্নাথবাবু।

সাংসদের এমন বিতর্ক স্বভাবতই উপভোগ করতে থাকেন দলীয় কর্মী- সমর্থকরা। হাততালি আর জয় শ্রীরাম স্লোগান দিয়ে সাংসদকে উৎসাহিতও করেন তাঁরা। 

তাতেই হয়তো উদ্বুদ্ধ হয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশে আপত্তিকর মন্তব্য করতেই থাকেন জগন্নাথবাবু। তিনি বলেন, "ছোট বেলায় অন্ধকারে বাড়ি থেকে বেরোতে ভয় পেলে বাড়ির লোকরা রাম নাম বলার পরামর্শ দিতেন। কারণ ভূত, পেত্নীরা রাম নাম সহ্য করতে পারে না। মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর দলের নেতানেত্রীরাও জয় শ্রী রাম স্লোগান সহ্য করতে পারছেন না। এবার আপনারাই বুঝে নিন কে ভূত আর কে পেত্নী।"

লোকসভা ভোটের পর থেকেই এ রাজ্যে রাজনৈতিক উত্তেজনা চরেম পৌঁছেছে। এই অবস্থায় রাজনৈতিক নেতারা এমন বিতর্কিত মন্তব্য করলে উত্তেজনার পারদ আরও চড়তে বাধ্য। সেসবের তোয়াক্কা না করেই এ দিন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে বেলাগাম মন্তব্য করতে থাকেন বিজেপি সাংসদ। জগন্নাথবাবু এ দিন দলীয় কর্মীদের পরামর্শ দিয়ে বলেন, মুখ্যমন্ত্রী যেখানেই যাবেন, সেখানেই যেন তাঁকে উদ্দেশ করে জয় শ্রীরাম বলা হয়।