দীপক দাস,শিলিগুড়ি : সংবিধান মেনে সর্বোচ্চ উচ্চ ক্ষমতা দেওয়া হোক পাহাড়কে।শিলিগুড়িতে জানালেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র।

দলীয় কাজে শিলিগুড়িতে রয়েছেন সূর্যকান্ত মিশ্র।শুধু তিনি নন রয়েছেন সুজন চক্রবর্তীর মতন রাজ্য নেতৃত্বরা।আগামী বিধানসভা,কর্পোরেশন,পঞ্চায়েত,মহকুমা পরিষদের,নির্বাচনের রণকৌশল তৈরি করতেই দফায় দফায় জেলা নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করছেন তিনি।বুধবার হিলকার্ট রোড অনিল বিশ্বাস ভবন উত্তরবঙ্গের জেলা নেতৃত্বদের নিয়ে এমনই বৈঠক করেন তিনি।

মূলত, তৃণমূল ও বিজেপিকে রাজ্য থেকে উৎখাত করতে সমস্ত বিরোধী রাজনৈতিক দলকে নিয়ে চলতে চায় বাম শক্তি,এবং তাদের আশা  তাদের শক্তি আগামীতে রাজ্যে ক্ষমতায় আসবে।পাশাপাশি পাহাড় প্রসঙ্গে তিনি জানান,পাহাড়ে যে অশান্তি সৃষ্টি হয়েছিল তার দায় রাজ্য সরকারের।তিনি দাবি করেন, সংবিধান মেনে উচ্চ ক্ষমতা দেওয়া হোক পাহাড়কে। শুধু তাই নয় ষষ্ঠ তপশীল এর আওতায় এনে পাহাড়বাসীর উন্নয়ন সাধন করা এমনও দাবি করেন তিনি।

এদিকে, গোর্খ্যাল্যান্ড নিয়ে আজ ৭ অক্টোবর ত্রিপাক্ষিক বৈঠক ডেকেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই বৈঠকে আমন্ত্রণ জানিয়ে চিঠি পাঠানো হয়েছে সিংমারিতে বিমল গুরুং-এর বাড়ির ঠিকানায়। চিঠি গিয়েছে রাজ্য সরকার ও জিটিএ’র কাছেও। খবর প্রকাশ্যে আসতেই হইচই শুরু হয়েছে। থাকবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী। 

এ নিয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে রাজ্যের পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব বলেন, ভোট এলেও পাহাড় নিয়ে খেলতে শুরু করে বিজেপি। বাংলা ভাগ হবে না। সবই ওদের স্ট্যান্টবাজি। বিমল গুরুং অন্তরালে। অথচ ওর বাড়িতে চিঠি পাঠানো হয়েছে। আমরা পরিস্থিতির দিকে নজর রাখছি।এই বৈঠক নিয়ে রাজ্যের প্রতিক্রিয়া মেলেনি। বিনয় তামাং পন্থী মোর্চা ও জিটিএ কর্তারা বৈঠকে যাবেন কিনা তা স্পষ্ট নয়। তবে গ্রন্থি মোর্চার নেতৃত্বরা জানান , এটি কেন্দ্রের সদর্থক পদক্ষেপ। আমাদের দুই প্রতিনিধি বৈঠকে যাবেন।