শীতে বর্ষার আমেজের পর শনিবার থেকেই পরিষ্কার হতে চলেছে আকাশ। রাতের দিকেও তাপমাত্রা অনেকটাই কমবে। এমনই পূর্বাভাস দিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সপ্তাহান্তে শনি এবং রবিবার কলকাতার তাপমাত্রা ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াসেও নামতে পারে বলে জানাচ্ছেন আবহিদরা। রয়েছে শৈত্যপ্রবাহের সতর্কতাও।

বৃহস্পতিবার থেকেই কলকাতা- সহ দক্ষিণবঙ্গের আকাশ মেঘলা রয়েছে। বৃহস্পতিবার বেশ কয়েক পশলা বৃষ্টিও হয়েছে। শুক্রবারও কলকাতা এবং সংলগ্ন এলাকার আকাশ মেঘলাই ছিল। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস অনুযায়ী, বছরের শেষ শনি এবং রবিবার ঝকঝকে আকাশের সঙ্গে জমিয়ে শীতের আনন্দ উপভোগ করা যাবে। শুক্রবার থেকেই পারদ পতন শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। শুক্র এবং শনিবার পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলি এবং হিমালয় সংলগ্ন সমস্ত জেলায় মরশুমের শীতলতম দিন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই দু' দিন পুরুলিয়া, বীরভূম, ঝাড়গ্রাম এবং হিমালয় সংলগ্ন জেলাগুলিতে শৈত্যপ্রবাহের সতর্কতা জারি করেছে আবহাওয়া দফতর। ৩০ এবং ৩১ ডিসেম্বর অবশ্য তাপমাত্রা ফের কিছুটা বাড়তে পারে। 

তবে নতুন বছরের শুরুতেই ফের বৃষ্টির কবলে পড়তে পারে গোটা দক্ষিণবঙ্গ। এক থেকে তিন জানুয়ারি পর্যন্ত বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে হাওয়া অফিস। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাসও রয়েছে। কলকাতা এবং দক্ষিণবঙ্গের বাকি জেলাগুলিতে হালকা বৃষ্টি হতে পারে। 

আগামী আটচল্লিশ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গের বাঁকুড়া, বীরভূম, মুর্শিদাবাদে ঘন কুয়াশার সতর্কতা জারি করেছেন আবহাওয়া দফতর। উত্তর পশ্চিম ভারতে আগামী ৩০ ডিসেম্বর একটি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা আসার সম্ভাবনা তৈরি হয়েছে, তারই জেরে বছরের শুরুতে বৃষ্টি হতে পারে।