দ্বৈপায়ন লালা, মালদহ:  বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া এলাকায় এবার আক্রান্ত হলেন চারজন সিভিক ভলান্টিয়ার। রেহাই পেলেন না স্থানীয় পঞ্চায়েত সদস্যও। অভিযোগের তির বিএসএফের দিকে। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহের হবিবপুরে।

আরও পড়ুন: ডাকাতির উদ্দেশ্য়ে জড়ো হওয়া ৬ দুষ্কৃতী গ্রেফতার, ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার ধারাল অস্ত্র

ঘটনাটি ঠিক কী? মঙ্গলবার রাতে ডিউটি সেরে বাড়ি ফিরছিলেন দু'জন সিভিক ভলান্টিয়ার। ফেরার পথে হবিবপুর থানার দাড়িপাড়া সীমান্ত চৌকির অন্তর্গত বিজলপাড়া এলাকায় কর্তব্যরত বিএসএফ জওয়ানরা তাঁদের পথ আটকান। কোনও কারণে ছাড়াই ওই দুই সিভিক ভলান্টিয়ারকে লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এমনকী, খবর পেয়ে আরও দু'জন সিভিক ভলান্টিয়ার যখন এলাকায় পৌঁছন, তখন তাঁদেরও রেয়াত করেননি সীমান্তরক্ষী বাহিনীর জওয়ানরা। আক্রান্ত হন স্থানীয় বৈদ্যপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বিজেপি সদস্যরাও। শেষপর্যন্ত হবিবপুর থাবার আইসি নিজে ঘটনাস্থলে গিয়ে আক্রান্তদের উদ্ধার করেন। তাঁদের নিয়ে যাওয়া হয় বুলবুলচণ্ডী প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে।

আরও পড়ুন: রেশনে দেওয়া হচ্ছে পোকা ধরা চাল, তাই নিয়ে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী

কেন হঠাৎ করে সিভিক ভলান্টিয়ারদের উপর চড়াও হলেন? আক্রান্তদের দাবি, জওয়ানরা মদ্যপ ছিলেন। নেশার ঘোরে তাঁরা মারধর করেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। সীমান্ত চৌকির দায়িত্বপ্রাপ্ত কমান্ডার-সহ পাঁচজন বিএসএফ জওয়ানের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে হবিবপুর থানার পুলিশ।