আশিস মণ্ডল, বীরভূম:  লকডাউনের সময় বিদ্যুতের বিল মকুব, পরিযায়ী শ্রমিকদের ছয় মাস ভাতা দেওয়ার দাবিতে ডেপুটেশন দিতে গিয়ে গ্রেফতার হলেন কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ। গ্রেফতার করা হল প্রাক্তন বিধায়ক, ফরওয়ার্ড ব্লকের জেলা সম্পাদক দীপক চট্টোপাধ্যায়কে। ঘণ্টাখানেক পর অবশ্য তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

শুক্রবার রাজ্য জুড়ে বামফ্রন্ট এবং কংগ্রেসের ট্রেড ইউনিয়নের বিভিন্ন দাবিতে মহকুমা শাসকের অফিসে ডেপুটেশন দেওয়ার কর্মসূচী ছিল। সেই মতো এদিন বেলা ১০ টার দিকে রামপুরহাট শহরের পাঁচমাথা মোড়ে জমায়েত হন দলের নেতৃত্বরা।  উপস্থিত ছিলেন সিপিএমের জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য সঞ্জীব বর্মণ, সঞ্জীব মল্লিক, কংগ্রেসের রামপুরহাট শহর সভাপতি সাহাজাদা হোসেন কিনু, ফরওয়ার্ড ব্লকের জেলা নেতা কামাল হাসান সহ অনেকে। দুই সংগঠনের পক্ষ থেকে পাঁচমাথা মোড়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্প সংখ্যক জমায়েত করে মহকুমাশাসকের কাছে ডেপুটেশন দিতে যাচ্ছিলেন। সে সময় পুলিশ তাদের বাধা দেয়। এনিয়ে পুলিশের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এরপরেই পুলিশ দুই সংগঠনের নেতৃত্বদের গ্রেফতার করে। 

বীরভূমের হাঁসনের কংগ্রেস বিধায়ক মিল্টন রশিদ বলেন, "শাসক দল ব্লকে ব্লকে কর্মী সভা করবে। ২১ জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সভায় বুথে বুথে জমায়েত করে বক্তব্য শুনতে পারবে। কিন্তু বিরোধীরা কোন কর্মসূচী করতে পারবে না। মুখ্যমন্ত্রী হিটলারি শাসন চালাচ্ছে। এভাবে বিরোধী রাজনৈতিক দলের কণ্ঠরোধ করা যাবে না।' এদিন বিজেপি ও এস ইউ সি আইয়ের পক্ষ থেকেও বিদ্যুৎ দফতরের অফিসে অফিসে বিক্ষোভ দেখানো হয়।