বন্ধ ঘরের ভিতর থেকে আদিবাসী দম্পত্তির মুণ্ডহীন দেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল পুরুলিয়ায়। ডাইনি অপবাদে ওই আদিবাসী দম্পতিকে খুন করা হয়েছে বলে অভিযোগ। অন্যদিকে, জমি সংক্রান্ত বিবাদের জেরে খুন হতে পারে বলে অনুমান।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পুরুলিয়ার আড়সা থানার তানাসি গ্রামে। গ্রামবাসীদের দাবি, মৃত দম্পত্তি বছর পঁয়ষট্টির পাতাই মাঝি ও বছর পঞ্চান্নর লেকাশি মাঝি। ওই দম্পত্তির তিন সন্তান থাকলেও দুজনের আগেই মৃত্যু হয়েছিল। ছোট ছেলে মুকুন্দ মাঝি থাকে অন্য় গ্রামে। প্রতিদিনই স্বাভাবিক অবস্থায় দেখা যায় দম্পতিকে। শুক্রবার সকালে বেলা গড়ালেও ঘর থেকে তাঁরা বের হননি। ঘরের ভিতর থেকে কোনও সাড়া শব্দ না মেলায় পুলিশে খবর দেয় গ্রামবাসীরা। বাড়ির দরজা খুলতেই দম্পতির মুণ্ডহীন দেহের হদিশ পায় পুলিশ। ঘটনার জেরে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।

ছোট ছেলে মুকুন্দ মাঝি বলেন, ''যখন আমরা ছোট ছিলাম, তখন মাকে সবাই ডাইনি বলত। এ নিয়ে প্রতিবেশীদের সঙ্গে ঝামেলাও হয়েছিল। নিজেদের চাষের গরু বিক্রি করে ষোল আনা জরিমানাও দিতে হয়। আবার, কিছুদিন আগে প্রতিবেশীদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিবাদ হয়। তবে কী কারনে এই ঘটনা। তা আমি বুঝতে পারছি না''।   

ঘর থেকে মুণ্ডহীন দেহ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে আড়সা থানার পুলিশ। তবে কী কারনে খুন তা নিয়েও সন্দেহ রয়েছে পুলিশের। ডাইনি অপবাদে খুন কিনা তাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।