ওষুধ বা প্রতিষেধক নেই, সংক্রমণ ঠেকাতে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। করোনা রুখতে একমাত্র মেয়ের অন্নপ্রশাসন স্থগিত করে দিলেন রায়গঞ্জের এক দম্পতি। নজির গড়লেন সামাজিক দায়বদ্ধতার।

আরও পড়ুন: 'ডায়েট নয়, বাড়িয়ে তুলুন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা', করোনা মোকাবিলায় উপদেশ মমতার

আরও পড়ুন: ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত স্থগিত উচ্চ মাধ্যমিক , করোনার ভয়ে বাতিল ২৩-২৫ মার্চের পরীক্ষা

সারা বিশ্বজুড়ে মহামারী আকার নিয়েছে করোনা ভাইরাস। এদেশেও লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যায়। কলকাতায় এখনও পর্যন্ত তিনজন শরীরের মিলেছে মারণ রোগের জীবাণু। করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে দেশের সর্বত্রই জমায়েত এড়িয়ে চলার নির্দেশিকা জারি করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রক। তারজেরে এ রাজ্যে বন্ধ স্কুল-কলেজ, স্থগিত হয়ে গিয়েছে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষাও। শুধু তাই নয়, রবিবার সকাল ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দেশজুড়ে 'জনতা কারফিউ'-এর ডাক দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। কারফিউ চলাকালীন জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত সকলেই বাড়িতে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এই প্রেক্ষাপটেই এবার একমাত্র মেয়ের অন্নপ্রাশন স্থগিত করে নজির গড়লেন বাংলার এক দম্পতি। 

 

উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জে পদ্মপুকুর এলাকার বাসিন্দা সুকান্ত ঘোষ পেশায় শিক্ষক। আগামী ২৯ মার্চ তাঁর একমাত্র মেয়ের অন্নপ্রশাসন হওয়ার কথা ছিল। আয়োজনে কোনও খামতি ছিল না। প্যান্ডেল, কেটারিং-এর লোককে আগাম টাকা দিয়ে রেখেছিলেন ওই শিক্ষক, ছাপিয়ে ফেলেছিলেন নিমন্ত্রণপত্রও। কিন্তু বাড়িতে নিমন্ত্রিতদের জমায়েতে যদি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে! সেই আশঙ্কাতেই মেয়ের অন্নপ্রশাসনের অনুষ্ঠান বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সুকান্ত। প্রথমে অবশ্য ভেবেছিলেন, খাওয়া-দাওয়া না হয় স্থগিত থাকুক, কিন্তু বাড়িতে ছোট করে হলেও অন্নপ্রশাসনের আচার অনুষ্ঠান করবেন। পরে সেই পরিকল্পনাও বাতিল করে দেন।