মুখ্যমন্ত্রীর উত্তরবঙ্গ সফরের মধ্যেই কালিম্পংয়ে আক্রান্ত হলেন বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্ত। ঘটনার জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায় কালিম্পংয়ের সিঞ্জিতে। একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যাওয়ার পথেই বিজেপি সাংসদের গাড়িতে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ। অভিযোগের তির বিনয় তামাং পন্থী গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা এবং তৃণমূল সমর্থকদের দিকে। ঘটনার কথা টুইট করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের নজরেও এনেছেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ। যদিও হামলার সঙ্গে তারা জড়িত না বলে দাবি করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব।

প্রেস বিবৃতি জারি করে দার্জিলিংয়ের সাংসদ জানিয়েছেন, এ দিন সিঞ্জিতে একটি প্রাথমিক স্কুলে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন তিনি। তখনই চার পুলের মন্দিরখোলা এলাকায় আশি থেকে একশো জনের তৃণমূল সমর্থকদের একটি দল তাঁর কনভয়ের পথ আটকায়। প্রথমে তাঁর বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকলেও একটু  পরেই ছুরি- সহ ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাঁর উপরে হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ বিজেপি সাংসদের। হামলায় তাঁর ব্যক্তিগত দেহরক্ষী ছাড়াও গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা এবং বিজেপি-র বেশ কিছু সমর্থক আহত হয়েছেন বলে দাবি করেছেন বিস্তা। হামলাকারীরা মদ্যপ অবস্থায় ছিল বলেই সাংসদের দাবি। তাঁর অভিযোগ, পুলিশের সহযোগিতা ছাড়া এই হামলা চালানো সম্ভব ছিল না। দার্জিলিংয়ের সাংসদের দাবি, তাঁর প্রাণনাশের উদ্দেশ্যেই এ দিনের হামলা সংগঠিত করা হয়েছিল। 

 

 

বিজেপি সাংসদের অভিযোগ, তাঁর উপরে এ দিন হামলা হতে পারে বলে আগেই খবর ছিল তাঁর কাছে। সোমবার রাতে কালিম্পংয়ের পুলিশ সুপার এস পি যাদবকে অভিযোগও জানিয়েছিলেন। যদিও বিষয়টি পুলিশ গুরুত্ব দেয়নি বলেই অভিযোগ বিস্তার। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব এবং ডিজি-কেও নিরাপত্তা বাড়ানোর কথা বলে লাভ হয়নি বলেই দাবি করেছেন দার্জিলিংয়ের সাংসদ। 

আরও পড়ুন- দার্জিলিংয়ের সাংসদের গাড়িতে হামলা, বিজেপি-র বিক্ষোভে উত্তপ্ত শিলিগুড়ি, দেখুন ভিডিও

রাজু বিস্তার অভিযোগ, গত একমাসে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার তাঁর উপরে হামলার ঘটনা ঘটল। বিজেপি সাংসদ অবশ্য জানিয়েছেন, এই ধরনের হামলাতেও ভয় পাবেন না তিনি। বাংলায় গণতন্ত্র নেই বলেও অভিযোগ তাঁর। ঘটনায় কালিম্পং থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে বিজেপি। 

 এই ঘটনার প্রতিবাদে শিলিগুড়িতে মিছিল বের করে বিজেপি। পথ অবরোধ করেন বিজেপি সমর্থকরা। অবরোধ তুলতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয় তাঁদের। তৃণমূল অবশ্য ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগ অস্বীকার করেছে।