বাড়িতে রাখা গ্যাস সিলিন্ডারে হঠাৎ আগুন লাগলে কী করবেন। ঘরেই বা আগুন লাগলে কী কী করতে হবে। দমকলের গাড়ি আসার আগে কী কী পন্থা অবলম্বন করতে পারেন বাড়ির লোকজন। বিভিন্নভাবে আগুন নেভানোর কৌশল শেখাতেই মঙ্গলবার মেদিনীপুর সদর ব্লকের শিরোমণি বীরষা মুণ্ডা হাইস্কুলের পড়ুয়াদের কাছে হাজির হলেন দমকল বিভাগের কর্মী আধিকারিকরা। মক ড্রিলের মাধ্যমে হাতেকলমে সবকিছু দেখানো হল তাদের। দমকল বিভাগের আধিকারিক চিন্ময় বক্সি জানান, মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতেই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

বাড়িতে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বা অন্য কোথাও হঠাৎ আগুন লাগলে কীভাবে মানুষকে উদ্ধার করতে হবে। আবার মানুষকে উদ্ধার করতে গিয়ে অনেক সময় মানুষজন কখনও আগুনের হলকানিতে বা কখনও ধোঁয়ার চোটে অজ্ঞান হয়ে পড়েন। হাসপাতালে নিয়ে যাওায়ার পথে সেইসব মানুষকে প্রাথমিক চিকিৎসা কীভাবে দিতে হবে তাও শেখানো হয়। পাশাপাশি বাড়িতে বাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডারের ব্যবহার খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। 

অনেকেই অগোছালোভাবে সিড়ির তলায় বা ইলেকট্রিক মিটার বক্সের সামনে অবহেলায় গ্যাস সিলিন্ডার রেখে দেন। সেসব থেকেও সতর্ক থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়। গ্যাস সিলিন্ডারে আগুন লাগলে ভেজা কাপড় জড়িয়ে রাখা থেকে শুরু করে বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে রাখা সহ কী কী সতর্কতা নিতে হয় তাও দেখানো হয় ছাত্রছাত্রীদের। এদিন শিরোমনি স্কুলে ছিল ক্রীড়া প্রতিযোগিতার আয়োজনও। ফলে ছাত্রছাত্রীরাও আগ্রহভরে সব শিক্ষা নিয়েছে। পরে ছাত্রছাত্রী ও শিক্ষকদের সঙ্গে যৌথ সচেতনতা সভাও করেন দমকল বিভাগের আধিকারিকরা।