ফের জয় শ্রীরাম বলা নিয়ে রাজনৈতিক হামলার ঘটনা রাজ্যে। তৃণমূল কর্মীদের মারধরের অভিযোগ উঠল বিজেপি-র বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর দিনাজপুরের করণদিঘি থানার সিঙ্গারদহ গ্রামে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি। 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার করণদিঘির পূর্ব ফতেপুরের বাসিন্দা তৃণমূল কর্মী মহম্মদ মোক্তার, দিলবার হোসেন-সহ এলাকার পাঁচ তৃণমূল কর্মী একটি পুকুরে মাছ ধরছিলেন। হঠাৎই সেখানে চড়াও হন স্থানীয় পঞ্চায়েতের বিজেপি সদস্যের স্বামী ও সিঙ্গারদহ গ্রামের বিজেপি কর্মীরা। অভিযোগ, তৃণমূল কংগ্রেসের পাঁচ কর্মীকে গরু চুরির অপবাদ দিয়ে তাদের ব্যাপক মারধর করা হয়। তাঁদের দিয়ে জোর করে জয় শ্রীরাম বলানোর চেষ্টা করা হয় বলেও অভিযোগ। জয় শ্রীরাম বলতে আপত্তি করায় বেধড়ক মারধর করা হয় তৃণমূল কর্মীদের। 

আরও পড়ুন- কাটমানি বিতর্কে মমতার শীর্ষ মন্ত্রী, তোলাবাজির অভিযোগে হাইকোর্টের নোটিশ

গণ্ডগোলের খবর পেয়ে স্থানীয় মানুষ এবং তৃণমূল কর্মীরা জড়ো হয়ে গেলে অভিযুক্ত বিজেপি কর্মীরা পালিয়ে যান। গুরুতর আহত মহম্মদ মোক্তার ও দিলবার হোসেন-সহ মোট পাঁচজন তৃনমূল কর্মীকে প্রথমে করণদিঘি গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে দিলবার হোসেন ও মহম্মদ মোক্তারের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁদের রায়গঞ্জ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। 

তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে করনদিঘি থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে করনদিঘি থানার পুলিশ। যদিও, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত কেউ গ্রেফতার হয়নি।

বিজেপি নেতাদের অবশ্য দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে তাঁরা কোনওভাবে যুক্ত নন। টাকা ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে গণ্ডগোলের জেরেই তৃণমূল কর্মীদের মারধর করা হয়েছে বলে তাঁদের দাবি।