বিষ্ণুপুরের লাল মাটির গন্ধ এবার পাওয়া যাবে হলদিয়া শিল্পাঞ্চলে। হলদিয়ার বাসুদেবপুর ক্ষুদিরাম স্মৃতি সংঘের পুজো এবার পা দিল ৩০ বছরে। আর এ বছর তাদের থিম 'মাটি আমার মা।' এশিয়ানেট নিউজ বাংলার শারদ সম্মানের জেলার পুজোর চূড়ান্ত পনেরোর তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে হলদিয়ার এই বিখ্যাত পুজোটি। 

বাঁকুড়া জেলার বিষ্ণুপুরের একটি কাল্পনিক মন্দিরের আদলে তৈরি হয়েছে ক্ষুদিরাম স্মৃতি সংঘের মণ্ডপ। টেরাকোটার নানা রকম কাজ দিয়ে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে মণ্ডপটিকে। প্রায় ২০ জন দক্ষ শিল্পীকে দিয়ে তিন মাস ধরে চলেছে মণ্ডপ তৈরির কাজ। মণ্ডপের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে টেরাকোটার দুর্গা প্রতিমাও তৈরি করে নিয়ে আসা হয়েছে বিষ্ণুপুর থেকে। বৃষ্টির জন্য কাজে অবশ্য যথেষ্টই অসুবিধা হয়েছে। তাই শেষ বেলায় যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতে কাজ করে মণ্ডপ প্রস্তুত করেছেন শিল্পী এবং শ্রমিকরা।

পুজো কমিটির সম্পাদক শেখ আমির বলেন, 'বাংলায় অনে সুন্দর সুন্দর জিনিস রয়েছে। সেগুলিই আমরা মানুষকে দেখানোর চেষ্টা করছি।' শিল্প শহরে কর্মসূত্রে অন্য জেলার পাশাপাশি ভিন রাজ্যের মানুষও থাকেন। সবার পক্ষে সব জায়গায় যাওয়া সম্ভব নয়। পোড়া মাটির এই টেরাকোটার কাজ আজ বিলুপ্তির পথে। তাই এই শিল্পকলা দেখে মানুষ যাতে বিষ্ণুপুরের এই বিখ্যাত শিল্প সম্পর্কে জানতে পারেন, সেই উদ্দেশ্যেই এই চেষ্টা উদ্ধ্যোক্তাদের।