বর্ষা শুরু হওয়ার মুখেই পর্যটকদের জন্য বন্ধ হয়ে গেল ডুয়ার্সের জঙ্গল। আপাতত তিন মাসের জন্য পর্যটকরা ঢুকতে পারবেন না জঙ্গলে। আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই নির্দেশিকা জারি থাকবে। 

রবিবার থেকেই জঙ্গল বন্ধ রাখার নির্দেশিকা কার্যকর করা হয়। ফলে ডুয়ার্সের জঙ্গলে পর্যটকদের যাবতীয় বুকিং, জঙ্গল সাফারি আপাতত বন্ধ। প্রতি বছরই অবশ্য বর্ষার সময় তিন মাসের জন্য বন্ধ থাকে ডুয়ার্স। 

বর্ষার সময়টাই প্রজননের প্রিয় বন্যপ্রাণীদের। এছাড়াও এই সময়ে  জঙ্গলের গাছপালাও বেড়ে ওঠে। তাই সংরক্ষিত এলাকায় তিনমাসের জন্য  পর্যটকদের প্রবেশ বন্ধ রাখা হয় বলে জানান উত্তরবঙ্গের মুখ্য বনপাল উজ্জ্বল ঘোষ।

তবে জঙ্গলের সংরক্ষিত এলাকা বন্ধ থাকলেও খোলা থাকছে জঙ্গলের বাকি অংশ। যেমন কালীপুর, রামশাই, মেদলার মতো এলাকায় ভ্রমণের জায়গাগুলিতে এসে বর্ষায় সবুজে ভরা ডুয়ার্সকে উপভোগ করতেই পারেন পর্যটকরা।  পর্যটকেরা ডুয়ার্সে বেড়াত আসেন মুলত জঙ্গল সাফারি করার জন্যই। এই জঙ্গলে মুল আকর্ষণ হল এক শৃঙ্গ গন্ডার, যা অন্য কোথাও পাওয়া যায় না। 

এছাড়াও বিভিন্ন প্রজাতির হরিণ, হাতি,  বাইসন, বুনো শুয়োর-সহ নানা জীবজন্তু দেখার টানে ডুয়ার্সে ছুটে আসেন পর্যটকরা। কিন্তু পর্যটকদের ভিড় অনেক সময়ই জঙ্গলের প্রাণীদের বিড়ম্বনার কারণ হয়ে দাঁড়ায়। তাই প্রজননের সময় তারা যাতে কোনওভাবেই বিরক্ত না হয়, তা নিশ্চিত করতেই এই বিধিনিষেধ জারি করা হয়।