বুধবার থেকে জেলায় জেলায় চালু হল লোকাল ট্রেন পরিষেবা। প্রায় সাড়ে আট মাস পর লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু হওয়ায় জেলার সঙ্গে যোগাযোগ বাড়ায় খুশি যাত্রীরা। তবে লোকাল ট্রেনের সংখ্যা তুললানমূলকভাবে অনেক কম বলে দাবি যাত্রীদের। অন্যদিকে, প্যাসে়ঞ্জার ট্রেন গুলিকে স্পেশাল ট্রেনের তকমা দিয়ে বেশি ভাড়া নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ।

আরও পড়ুন-প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে বিশ্বভারতী আসতে পারেন মোদী, থাকতে পারেনও রাজ্যপালও

বুধবার লোকাল ট্রেন পরিষেবা চালু হল বর্ধমান-রামপুরহাটের মধ্যে চারজোড়া। কাটোয়া আজিমগঞ্জের মাঝে চার জোড়া। আজিমগঞ্জ-রামপুরহাটের মধ্যে তিন জোড়া। সাগরজোড়া ও রামপুরহাট জেসিডির মাঝে একজোড়া লোকাল ট্রেন তালু হয়েছে। আবার, বীরভূম, বর্ধমান, মুর্শিদাবাদে লোকাল ট্রেন পরিষেবা হওয়ায় অনেকটাই সুবিধা হল সাধারণ মানুষের।

আরও পড়ুন-'আর নয় অন্যায়', তৃণমূলের বিরোধিতায় পালটা কর্মসূচি বিজেপির

মুর্শিদাবাদের লালগোলা প্যাসেঞ্জার চালু না হলেও ভাগীরথী এক্সপ্রেস চালু হয়েছে। কিন্তু, স্পেশাল ট্রেনের তকমা দিয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন যাত্রীরা। তবে ভাগীরথী এক্সপ্রেস ট্রেনে সবই সংরক্ষিত টিকিট। রেলের এইভাবে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে অনৈতিক বলে দাবি করেছে রেলের কর্মী সংগঠন।