১৯৭৫-এর ২৫ জুন। দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করেছিল ইন্দিরা গাঁধী সরকার। সেকথা মনে করিয়ে দিয়েই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে টুইটারে খোঁচা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একই সঙ্গে নাম না করে নরেন্দ্র মোদীকে ইতিহাস থেকে শিক্ষা নেওয়ার পরামর্শও দিলেন মমতা। 

টুইটারে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লিখেছেন, '১৯৭৫ সালে আজকের দিনেই জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছিল। গত ৫ বছর দেশে 'সুপার ইমার্জেন্সি' চলছে। ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিয়ে আমাদের উচিক দেশের গণতন্ত্রকে শক্তিশালী করার জন্য লড়াই করা।'

আরও পড়ুন- বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাশালী নেতাদের দৌড়ে এগিয়ে মোদী

 

বিপুল জনাদেশ নিয়েই দ্বিতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় ফিরেছে মোদী সরকার। কিন্তু তাতেও যে তিনি নিজের মোদী বিরোধী অবস্থান থেকে একচুলও সরছেন না, গত কয়েকদিনে বার বার তা প্রমাণ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। নতুন মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পরে প্রধানমন্ত্রীর ডাকা দু'টি বৈঠক বয়কট করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রধানমন্ত্রীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানেও যাননি তিনি। অদূর ভবিষ্যতেও তিনি যে সংঘাতের পথ থেকে সরে আসবেন না, এ দিনের টুইট বার্তাতেই তা ফের একবার স্পষ্ট করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। 

লোকসভা ভোটের প্রচারেও বার বার মোদী সরকারের বিরুদ্ধে দেশে সুপার ইমার্জেন্সি চালানোর অভিযোগে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ ছিল, সরকারের বিরোধিতা করলেই বিরোধীদের ভয় দেখাতে ইডি, সিবিআই-এর মতো তদন্তকারী সংস্থাগুলিকে ব্যবহার করছে কেন্দ্রীয় সরকার। মানুষের ধর্মাচারণ নিয়েও হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপি-র নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার দেশের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোও নষ্ট করছে বলে অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।