এবারে উত্তর দিনাজপুরেও স্ত্রীকে ফিরে পাওয়ার দাবিতে ধর্নায় বসলেন এক যুবক।উত্তর দিনাজপুর জেলার গোয়ালপোখর এলাকার সাহাপুরের বাসিন্দা ওই যুবক গোপাল বল কানকি তাঁর হবু শ্বশুরবাড়ির সামনে নিজের দুই বন্ধুকে নিয়ে ধর্নায় বসেছেন।হাতের প্ল্যাকার্ডে লেখা ''ধরনা--দাবি বৌ চাই''। তাঁর দাবি, সামাজিক মতে বিয়ে ঠিক হওয়ার ১৩ দিন আগেই শ্বশুরবাড়ি থেকে হঠাৎই নিখোঁজ  হয়েছেন তাঁর স্ত্রী। যতক্ষণ পর্যন্ত তাঁকে ফিরে পাওয়া না যাচ্ছে, ততক্ষণ শ্বশুরবাড়ির সামনেই ধর্নায় বসে থাকবেন তিনি।

গোপালবাবু বলেন,"আমাদের গত এপ্রিল মাসে আইনমাফিক রেজিস্ট্রি মেরেজ হয়ে গিয়েছে। আগামী ২১জুন সামাজিক মতে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।কিন্তু হঠাৎ করেই আমার হবু স্ত্রীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। আমার স্ত্রীকে ফিরে না পাওয়া পর্যন্ত আমার ধর্না চলবেই।"

প্রেমিকের ধর্না সফল, লিপিকার সঙ্গেই চার হাত এক হল অনন্তের

প্রসঙ্গত দিন কয়েক আগে ধূপগুড়ির যুবক অনন্ত ধর্নায় বসে প্রেমিকা লিপিকার থেকে বিয়ের সম্মতি আদায় করে। সেই ঘটনা ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। প্রশ্ন উঠতে থাকে এও কি এক ধরনের চাপ দিয়ে স্বীকৃতি আদায় নয়। সামাজিক লজ্জার হাত থেকে বাঁচতে এই বলপ্রয়োগ কতটা ঠিক। এই বিতর্কের আবহেই ফের এক প্রেমিক অস্ত্র করল ধর্নাকে। দেখা যাক এই ঘটনার জল কতদূর গড়ায়।