ফের গণপিটুনিতে মৃত্যু রাজ্যে। কোচবিহারে গরু চোর সন্দেহে বেধড়ক মারে গুরুতর আহত হন দুই যুবক।  হাসপাতালে মারা যান তাঁরা। ঘটনার তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার ভোরে। ঘটনাস্থল, কোচবিহারের এক নম্বর ব্লকের পুঁটিমারির ফুলেশ্বরী এলাকায়। জানা গিয়েছে, ভোরের দিকে একটি পিকঅ্যাপ ভ্যানে চাপিয়ে দুটি গরু নিয়ে যাচ্ছিলেন বাবলা মিঞা ও  প্রকাশ দাস নামে দুই যুবক। অচেনা দুই যুবক গরু নিয়ে কোথায় যাচ্ছে! সন্দেহ হয় স্থানীয় বাসিন্দাদের। বাবলা ও প্রকাশের পথ আটকান তাঁরা। শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ।  কিন্তু সদুত্তর দিতে না পারায় ওই দুই যুবককে এলাকার লোকেরা বেধড়ক মারধর করতে শুরু করেন বলে অভিযোগ। খবর পেয়ে যখন পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছয়, ততক্ষণে বেধড়ক মারে আক্রান্তদের শারীরিক অবস্থা গুরুতর।  বাবলা ও প্রকাশকে উদ্ধার করে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই আক্রান্ত দুই যুবক মারা যান বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন: চলন্ত ট্রেনে মোবাইল ছিনতাইয়ের কিনারা, গ্রেফতার ২ দুষ্কৃতী

কখনও ছেলেধরা তো কখনও আবার গরুচোর, স্রেফ সন্দেহের বশে রাজ্যে গণপিটুনির ঘটনা বাড়ছে। প্রাণ যাচ্ছে নিরীহ মানুষদের।  দিন কয়ে আগে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে খুনের ঘটনায় এক মহিলা-সহ ১২ জনকে  যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে পূর্ব বর্ধমানের কালনা আদালত।