এ যেন জোর করে আতিথেয়তা নেওয়া। যাওয়ার দিনক্ষণ স্থির হল। অথচ শেষবেলায় থেকে গেলেন অতিথি। যার  নেট ফল বৃষ্টিতে বিরক্ত মহানগর। 

হাওয়া অফিস জানান দিয়ছিল,১৪ অক্টোবর কলকাতা থেকে বিদায় নেবে বর্ষা। বাস্তবে দেখা গেল, হল ঠিক উল্টো। বিদায়ঘণ্টার ৪৮ ঘণ্টা কেটে গেলেও রাজ্যে থেকেই গিয়েছে বৃষ্টি। যা দেখে অবাক হয়েছেন খোদ আবহবিদরা। বুধবার সকাল থেকেই কলকাতা, উত্তর ২৪ পরগনা ছাড়াও দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিস্তীর্ণ অঞ্চলে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হয়েছে। বেহালার শীলপাড়ায় কিছু সময়ের বৃষ্টিতে জল দাঁড়িয়ে গিয়েছে। যা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই ক্ষোভ দেখা দিয়েছে এলাকার বাসিন্দাদের মধ্য়ে। 

এদিকে, আবহাওয়ার এই খামখেয়ালিপনা নিয়ে মুখ খুলেছে হাওয়া অফিস। হাওয়া মোড়গ বলছে,আজ দেশ থেকে চলে গেল বর্ষা। কলকাতা ও শহরতলিতে যে বৃষ্টি হয়েছে , তার সঙ্গে বর্ষার কোনও যোগ নেই। এই বৃষ্টি মৌসুমী বায়ুর বৃষ্টি নয়। এই মুহূর্তে পূর্ব দিক থেকে যে হওয়া আসছে, তাতে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে । এর ফলে স্থলভাগের উপর ছোট ছোট মেঘ তৈরি হয়েছে। যার ফলে আজ দুই মেদিনীপুর, হাওড়া, কলকাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগনায় হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হবে। এটা কিন্তু মৌসুমী বায়ুর বৃষ্টি নয় । 

মূলত, হালকা বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা উপকূলীয় জেলাগুলোতেই বেশি। আজ ও কাল কলকাতাতে মেঘলা আকাশ থাকতে পারে। কলকাতায় হালকা মাঝারি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তবে তা দীর্ঘ সময় ধরে হবে না। এই সময় কলকাতা সহ মফসসলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা থাকবে ৩২ থেকে ৩৩ ডিগ্রি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা হবে ২৪ থেকে ২৫ ডিগ্রির কাছাকাছি। তবে এ কেবলই পূর্বাভাস। কলকাতায় বৃষ্টি দেখার পর অন্তত তেমনই বলছে কলকাতাবাসী। আবহাওয়ার প্রতি তাঁদের গলাতেও আক্ষেপের সুর।