ঠিক যেন সেই নোটবাতিলের সময়ের ছবি। বছর তিনেক আগে নোট বাতিল হওয়ার পরে রাতভর ব্যাঙ্কের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতেন অনেকে। এবার সেই আতঙ্কই যেন ফিরে আসছে এনআরসি-কে ঘিরে। পূর্ব বর্ধমানের গলসিতে ধরা পড়ল আতঙ্কের সেরকমই ছবি। আধার কার্ডের সংশোধন এবং নতুন আধার কার্ড করাতে গিয়ে অনেকেই পরিবার নিয়ে ব্যাঙ্কের বাইরে রাত কাটালেন।

ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি এবং পুরনো রেশন কার্ড সংশোধন নিয়েও একই ভাবে এনআরসি গুজব ছড়িয়েছে। এনআরসি নিয়ে রাজ্য সরকারের আশ্বাস উড়িয়ে দিয়ে জেলায় জেলায় দ্রুত ডিজিটাল রেশন কার্ড ভিড় করছেন অসংখ্য মানুষ। প্রত্যেকেরই আশঙ্কা, ডিজিটাল রেশন কার্ড না থাকলে এনআরসি-তে নাম থাকবে না। 

আরও পড়ুন- একাত্তর সালের কাগজ লাগবে না, এনআরসি আতঙ্ক কাটাতে আশ্বাস মমতার

আরও পড়ুন- এনআরসি আতঙ্কে রাজ্যে জোড়া মৃত্যু,দু' লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ ঘোষণা মমতার, দেখুন ভিডিও

অনেকটা একই ছবি পূর্ব বর্ধমানের গলসির স্টেট অফ ইন্ডিয়ার শাখায়। সেখানে প্রতিদিন সকাল দশটা থেকে আধার কার্ড সংশোধন এবং নতুন আধার কার্ড তৈরির কাজ হয়। কিন্তু প্রতিদিন মাত্র তিরিশ জনের কার্ড করা হয়। সকাল সকাল ব্যাঙ্কে এসেও তাই লাইন পাচ্ছেন না অনেকে। 

শেখ মোরসেলিন নামে এক বৃদ্ধ জানালেন, আগে একদিন কয়েক কিলোমিটার দূর থেকে এসে ফিরে যেতে হয়েছিল তাঁকে এবং তাঁর পরিবারকে। তাই রবিবার সন্ধ্যাবেলাতেই পরিবারের সবাই মিলে বিছনা, বালিশ নিয়ে গলসির ওই ব্যাঙ্কের শাখার বাইরে চলে এসেছিলেন তাঁরা। সকালে যাতে সবার আগে লাইন পাওয়া যায়, তা নিশ্চিত করতেই ব্যাঙ্কের মূল গেটের বাইরে বিছানা পেতে, মশারি টাঙিয়ে শুয়ে পড়েন তাঁরা। 

এ দিনও কলকাতায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আশ্বস্ত করে বলেছেন, এনআরসি নিয়ে অযথা আতঙ্কিত হওয়য়ার কোনও কারণ নেই। বাংলায় এনআরসি  হবে না বলেও দাবি করেছেন তিনি। কিন্তু কিছুতেই আমজনতার মন থেকে এনআরসি আতঙ্ক মোছা যাচ্ছে না।