রুশি পাঁজা:  বিশ্বভারতীকাণ্ডে কী সিবিআই তদন্ত হবে? জনস্বার্থ মামলার শুনানিতে তেমনই আর্জি জানালেন মামলাকারী। ক্যাম্পাসের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে সিআইএসএফ জওয়ানদের মোতায়েন করার আর্জি জানিয়েছেন মামলাকারী। মামলাটিতে কেন্দ্রীয় সরকার, বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ, এমনকী তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে যুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি।

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীর হামলার পিছনে রয়েছে তৃণমূল, বিস্ফোরক সূর্যকান্ত মিশ্র

বিশ্বভারতীকাণ্ডে  বিতর্ক অব্যাহত শান্তিনিকেতনে। নিরাপত্তাজনিত কারণে আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ কবিগুরুর সাধের বিশ্ববিদ্যালয়। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে অচলাবস্থা কাটাতে সবপক্ষকে নিয়ে বৈঠকে ডেকেছিলেন বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু। কিন্তু ঘটনা হল, খোদ বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের গরহাজিরা সেই বৈঠক কার্যত ভেস্তে গিয়েছে। তাহলে সমাধান মিলবে কোন পথে সাধারণ পোশাকে সাইকেলে চালিয়ে রবিবার দিনভর শান্তিনিকেতনের প্রবীণ আশ্রমিকদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে তাঁদের মতামত নিয়েছেন পুলিশ সুপার শ্যাম সিং। 

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীকাণ্ডে পথে নামলেন পুলিশ সুপার, সাধারণ পোশাকে বাড়ি বাড়ি গিয়ে নিলেন মতামত

ঘটনার সূত্রপাত গত সোমবার। সেদিন পৌষমেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়ার প্রতিবাদে বোলপুর একটি ধিক্কার মিছিল বেরোয়। মিছিলে প্রথমসারিতে ছিলেন তৃণমূল বিধায়ক নরেশ বাউরি, বোলপুরের বিদায়ী কাউন্সিলর-সহ আর অনেকেই।  স্রেফ মিছিল করাই নয়, পৌষমেলার মাঠে রীতিমতো তাণ্ডব চালান আন্দোলনকারীরা। বিশ্বভারতীকাণ্ডে আদালতের হস্তক্ষেপে হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা করেছেন রমাকান্ত সরকার নামে এক আইনজীবী। সোমবার মামলা শুনানিতে সিবিআই তদন্তেরও দাবি তোলেন তিনি।