বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এই প্রসঙ্গে মোদী আরও একবার টুইট করে জানিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকালে ভার্চুয়ালি বিশ্বভারতীর এই অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। উল্লেখ্য, এই অনুষ্ঠানে  আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।

 পদাধিকার বলে প্রধানমন্ত্রী মোদী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য

 গুরুদেব রবি ঠাকুরের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িত বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের এই উদযাপনের প্রতীক্ষায় রয়েছেন বলে বুধবার রাতে টুইট বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বৃহস্পতিবার  সকাল ১১টায় বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে উপস্থিত থাকবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় ও কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রী।প্রসঙ্গত,  ১৯২১ সালে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠা করেন। দেশের প্রাচিনতম বিশ্ববিদ্যালয়গুলির মধ্যে অন্যতম হল বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়। পদাধিকার বলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য। ১৯৫১ সালে মে মাসে বিশ্বভারতীকে সংসদীয় আইনের দ্বারা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা দেওয়া হয়। জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতিও দেওয়া হয়। এখনও অবধি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভাবধারা এবং মতাদর্শকেই গুরুত্ব দেওয়া হয় বিশ্বভারতীতে। 

বিশ্বভারতীর শতবর্ষ উদযাপনে আমন্ত্রিত মমতাও

অপরদিকে,  বঙ্গ রাজনীতির প্রেক্ষাপটে বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় যে জাতীয় রাজনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে। তা জ্বলজ্যান্ত প্রমাণ অমিত শাহ-র বোলপুর সফরের অন্যতম ছিল  বিশ্বভারতী। কর্মসূচির একটা বড় অংশ তিনি এখানে রেখেছিলেন। আর এবার শাহ -সফরের সপ্তাহ  ঘুরতে না ঘুরতেই সেই  বিশ্বভারতীতে অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। উল্লেখ্য, এই অনুষ্ঠানে  আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও।