ফের গুলি চালাল পুলিশ। গুড়াপে সাতুর গ্রামে  'জয় শ্রীরাম' ধ্বনিকে কেন্দ্র করে তৈরি হওয়া বচসার জেরে এই ঘটনা। গুলির আঘাতে আহত হয়েছেন জয়চাঁদ মালিক নামে এক বিজেপি কর্মী । তাঁকে চুঁচুড়া ইমামবাড়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, গত বুধবার রাতে গুরাপের বাথানগরিয়ার আসপাড়ায় বিজেপি সমর্থক সাধন বাউল দাস 'জয় শ্রীরাম' বলায় তাঁকে  টাঙি দিয়ে কোপানো হয়। এই ঘটনায় অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে। গুরুতর জখম বিজেপি সমর্থককে ধনিয়াখালি গ্রামীণ থেকে ইমামবাড়া জেলা হাসপাতালে পাঠানো হয়। এর পরে ঘটনার তদন্তে যায় গুরাপ থানার পুলিশ। 

এই সময় বাথানগরিয়া মোরে বিজেপি সমর্থক শুভেন্দু মালিকের বাইক আটকানো নিয়ে পুলিশের সঙ্গে বচসা বাধে। মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। শুভেন্দু গ্রামে ফিরে গেলে পুলিশ ওই গ্রামে ঢোকে।তখনই পুলিশকে ঘিরে গ্রামবাসীরা বিক্ষোভ শুরু করে। নিরপরাধ বিজেপি সমর্থককে কেন মারধর করা হল এই অভিযোগে পুলিশের সঙ্গে গ্রামবাসীদের ধ্বস্তাধস্তি শুরু হয়। অভিযোগ তখনই পুলিশ গুলি চালায়।তাতেই আহত হন জয়চাঁদ মালিক। এরপর ক্ষিপ্ত গ্রামবাসীরা পুলিশের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে। আটকে রাখে তিন পুলিশ কর্মীকে। ওই তিনজন পুলিশ কর্মীকে উদ্ধারে গ্রামে ঢোকে বিশাল পুলিশবাহিনী। 

হুগলি জেলা গ্রামীণ পুলিশ সুপার সুখেন্দু হীরা গুলি চলার কথা স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, 'ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ গ্রামে গেলে পুলিশ আক্রান্ত হয়।পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তাধস্তির সময় পিস্তল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে গ্রামবাসীরা। তখনই গুলি চলে।'