কালীপুজো নয়, রাস্তার দু'দিকে লক্ষ্মী পুজোর উপলক্ষ্যে জলসা চলছে।  গভীর রাতে তারস্বরে বাজছে মাইক। মাইক বন্ধ করতে গিয়ে ফের আক্রান্ত পুলিশ।  ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের হলদিয়ার দুর্গাচকে বাসুদেবপুর গ্রামে।  এদিকে পুলিশের বিরুদ্ধেও বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর  ও কয়েকজনকে মারধরের পাল্টা অভিযোগ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা।

বাসুদেব গ্রামে একশো মিটার দূরত্বে দুটি ক্লাব। দুটি ক্লাবে লক্ষ্মীপুজো হয়েছে রবিবার। মঙ্গলবার রাতে ছিল জলসা। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, গভীর রাতে তারস্বরে মাইক বাজাচ্ছিলেন এলাকার কয়েকজন যুবক। শব্দের মাত্রা এতটাই বেশি ছিল,যে এলাকার বেশ কয়েকজন প্রবীণ নাগরিক অসুস্থ হয়ে পড়েন। অনেকে আবার অন্য জায়গায় চলে যেতে বাধ্য হন। শেষপর্যন্ত  ক্লাবে গিয়ে মাইকের শব্দ একটু কম করার জন্য অনুরোধ করেন এলাকার কয়েকজন। কিন্তু তাতেও কোনও লাভ হয়নি। এরপরই পুলিশের খবর দেওয়া হয়। গভীর রাতে যখন হলদিয়ার দুর্গাচকের বাসুদেবপুর গ্রামে পুলিশ পৌছয়, তখন পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে।  পুলিশ আধিকারিকদের দাবি, মাইক তো বন্ধ করেনইনি, উল্টে তাঁদের উপর চড়াও হয়ে মারধর করতে শুরু করেন ক্লাবের সদস্য। ঘটনায় চারজন পুলিশকর্মী আহতও হয়েছেন। 

এদিকে আবার পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে বাড়ি ভাঙচুর ও মারধরের পাল্টা মারধরের অভিযোগ করেছেন স্থানীয় বাসিন্দাদের। তাঁদের দাবি, রাতে মাইক বন্ধ করতে এসে এলাকার বেশ কয়েকটি বাড়িতে ভাঙচুর চালান পুলিশকর্মীরা। এমনকী, বেশ কয়েকজনকে মারধরও করা হয়। কিন্তু যাঁদের বাড়িতে ভাঙচুর করা হয়েছে বা মারধর করা হয়েছে, তাঁদের কেউ মাইক বাজানোর সঙ্গে যুক্ত নন। সকলেই বাড়ির দরজা আটকে ঘুমোচ্ছিলেন। ঘটনার জেরে বুধবার কালে উত্তপ্ত ছিল বাসুদেবপুর গ্রামে।