এবার নৈহাটির বাজি কারখানায় বিস্ফোরণের ঘটনায় ফের একবার রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিলেন রাজ্য়পাল জগদীপ ধনখড়। ওই কারখানায় সত্যিই দেশি বোমা তৈরি হতো কি না, তা তদন্ত করে দেখা প্রয়োজন বলে টুইট করে মন্তব্য করেন রাজ্যপাল। পাল্টা তৃণমূলও হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে, এবার পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালকে নিয়ে সংসদে প্রধানমন্ত্রী-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে জবাবদিহি চাইবে তারা। 

শুক্রবার নৈহাটির দেবকে বাজি কারখানায় ভয়াবহ বিস্ফোরণে চারজনের মৃত্যু হয়। শনিবার মারা যান আরও একজন। এই ঘটনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে শনিবার টুইট করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। রাজ্য প্রশাসনকে খোঁচা দিয়ে তিনি লেখেন, 'নৈহাটির মসজিদপাড়ায় কারখানায় বিস্ফোরণে একাধিক মৃত্যুর ঘটনা আমায় হতবাক এবং ব্যথিত করেছে। ওই কারখানায় দেশি বোমা চৈরি করার যে অভিযোগ উঠেছে, তা বিশেষজ্ঞদের দিয়ে যথাযথ তদন্ত করা উচিত। প্রশাসনের সবাইকে আরও দায়িত্বশীল হয়ে দ্রুত পদক্ষেপ করতে হবে।'

রাজ্যপালের এই সক্রিয়তাকে যে শাসক দল একেবারেই ভালভাবে নিচ্ছে না, এ দিন তা আরও একবার স্পষ্ট করে দিয়েছেন তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি জানিয়েছেন, বাজেট অধিবেশন শুরু হলেই সংসদে পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপালকে নিয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন করবেন তাঁরা। কলকাতা উত্তর কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ বলেন, 'এরকম রাজ্যপাল কোনওদিন দেখিনি। বাজেট অধিবেশন জানুয়ারি মাসে শুরু হবে। সেখানে আমরা সরকারকে বাধ্য করব বাংলার রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে তাদের মতামত জানাতে। এর জন্য সংসদের যা যা নিয়ম আছে সেই অনুযায়ী যত দূর যাওয়ার আমরা যাব।' 

সুদীপবাবু আরও বলেন, 'পঞ্চাশ বছরের রাজনৈতিক অভিজ্ঞতা আর ন' বার জয়যুক্ত হওযার পর একবারের জেতা অমিত শাহ, দু' বারের জেতা নরেন্দ্র মোদীকে প্রশ্ন করব।' প্রসঙ্গত শীতকালীন অধিবেশনেও একবার লোকসভা এবং রাজ্যসভায় রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে সরব হয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদরা। তার পরেও রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্য সরকার এবং শাসক দলের সংঘাত তো কমেইনি, বরং উত্তেজনা পারদ উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পেয়েছে।