ধূপগুড়িতে (Dhupguri) বরযাত্রীর গাড়ি উল্টে বড়সড় দুর্ঘটনায়। ঘটনাস্থলেই পাথরবোঝাই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। আশঙ্কাজনক অবস্থায় ১০ জনকে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

 

 

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার রাতে পাথর বোঝাই গাড়ি উল্টে পড়ে রাস্তায় চলতি  তিনটি গাড়ির উপর। ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে মোট ১৩ জনের। যার মধ্যে চার শিশু, ৭ মহিলা এবং ২ জন পুরুষ রয়েছে। জানা যায় আরও  আহত ১১ জনকে স্থানান্তর করা হয়েছে জলপাইগুড়ি সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে। ঘটনাটি ঘটেছে ধূপগুড়ি-ময়নাগুড়ি মধ্যবর্তী এশিয়ান হাইওয়ের জলঢাকা ময়নাতলি এলাকায়। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় ধূপগুড়ি থানার পুলিশ এবং দমকল কর্মীরা। এদিকে পাথর বোঝাই লরির নীচে চাপা পড়ে থাকে দুটি যাত্রীবাহী ছোট গাড়ি। স্থানীয় বাসিন্দা ও দমকল কর্মীদের তৎপরতায় হতাহতদের উদ্ধার করা হয়।

 

 


 প্রায় দুই ঘন্টা লরির নীচে চাপা পড়ে থাকে ওই যাত্রীবাহী দুটি ছোট গাড়ি। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় জলপাইগুড়ি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গ্রামীন ওয়াংদে ভুটিয়া। পৌছায় র‍্যাফ সহ পুলিশ বাহিনী। দীর্ঘক্ষণের চেষ্টায় হতাহতদের উদ্ধার করা হয়। মৃতদের ধূপগুড়ি হাসপাতালের রাখা হয়। আহত ৭ জন পুরুষ,১ শিশু এবং ৩ জন মহিলাকে সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।এদিকে ঘটনার জেরে প্রায় ৩ ঘন্টা এশিয়ান হাইওয়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।জানা গিয়েছে, লরিটি ময়নাগুড়ির দিকে যাচ্ছিল এবং ওভারলোড বোল্ডার বোঝাই ছিল। আচমকা গাড়িটি পথচলতি তিনটি যাত্রীবাহী ছোটো গাড়ির উপর উল্টে যায়।স্থানীয়রা এগিয়ে আসে উদ্ধারের চেষ্টায়।

 

 

ঘটনার খবর পেয়ে ধূপগুড়ি হাসপাতালে আসেন জেলা পুলিশ সুপার প্রদীপ কুমার যাদব।এরপরেই ধূপগুড়ি হাসপাতালে আসেন জলপাইগুড়ি রেঞ্জের ডি আই জি (DIG)।ঘটনা জানতে পেরে ধূপগুড়ি হাসপাতালে পৌছান ধূপগুড়ির বিধায়ক মিতালী রায় (Mitali Roy)। অন্যদিকে ধূপগুড়ি পুরসভার ভাইস চেয়ারম্যান রাজেশ কুমার সিং ( Rajesh Kumar Singh) কলকাতায় থাকাকালীন বিষয়টি সর্ম্পকে খোজ নেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় (Abhishek Banerjee) এবং মৃত এবং আহতদের পরিবারের পাশে থাকার নির্দেশ দেন বলে জানিয়েছেন ভাইস চেয়ারম্যান (vice chairman)।