এক মৎস্যজীবীকে বাঁচাতে গিয়ে বাঘে তুলে নিয়ে গেল আর এক মৎস্যজীবীকে। বৃহস্পতিবার বিকেলে মর্মান্তিক এই ঘটনা ঘটেছে  সুন্দরবনের পঞ্চমুখানি ২ নম্বর জঙ্গলে। নিহত মৎস্যজীবীর দেহ উদ্ধার হলেও এখনও নিখোঁজ তাঁর সঙ্গী। 

বন দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, নিহত মৎস্যজীবীর নাম শম্ভু মণ্ড (৫৬)। তাঁর সঙ্গী রাধাকান্ত আউলিয়া (৫৪) নামে আরও এক মৎস্যজীবীকে বাঘ তুলে নিয়ে গিয়েছে বলে খবর।

বুধবার বিকেলে সুন্দরবন কোষ্টাল থানার অন্তর্গত লাহিড়িপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের রজতজুবিলি গ্রামের দত্তপাড়ার বাসিন্দা শম্ভু ও রাধাকান্ত মাছ ধরার জন্য সুন্দরবনের পঞ্চমুখানির জঙ্গলে যান। বৃহস্পতিবার বিকেলে যখন তাঁরা মাছ ধরছিলেন, ঠিক সেই সময় একটি বাঘ এসে প্রথমে শম্ভুর উপরে ঝাঁপিয়ে পড়ে। সঙ্গীকে বাঘে ধরেছে দেখতে পেয়ে রাধাকান্ত তাঁকে উদ্ধার করতে যান। বাঘটিকে তাড়ানোর চেষ্টা করেন তিনি। তখন বাঘ শম্ভুকে ছেড়ে রাধাকান্তর উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। তাঁকে তুলে নিয়ে জঙ্গলের মধ্যে মিলিয়ে যায় রয়্য়াল বেঙ্গল টাইগার। 

বাঘের হামলায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় শম্ভুর। ঘটনাস্থলের আশপাশে থাকা অন্যান্য মৎস্যজীবীরা বন দফতর এবং পুলিশে খবর দেন। পরে বন দফতর এবং পুলিশকর্মীদের সাহায্যে শম্ভুর মণ্ডলের দেহ উদ্ধার হলেও নিখোঁজ রাধাকান্তের কোনও খোঁজই মেলেনি। তাঁর খোঁজে জঙ্গলে তল্লাশি শুরু হয়েছে। ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে দত্তপুর গ্রামে।