দক্ষিণ ২৪ পরগনার বজবজ-২ ব্লকের নোদাখালি থানার অর্ন্তভুক্ত বুড়ুল উচ্চমাধ্যমিক হাইস্কুল। এই স্কুল এই বছর স্বর্ণ জয়ন্তী বর্ষ। এই উপলক্ষে বিদ্যালয়ের স্কুল কমিটির সদস্যরা পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর-কে আমন্ত্রণ জানাবো বলে মনোস্থির করে। এই নিয়েই নাকি বচসা বাঁধে বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক ও স্কুল কমিটি সদস্যদের মধ্যে শুরু হয় সমস্যা। সেই বচসার এমন জায়গায় পৌঁছয় যে স্কুল কমিটির দুইজন সদস্য স্কুলের শিক্ষক ইনচার্জ রতনলাল হালদার ও সহ শিক্ষক সুপ্রিয় রায়-কে স্থান্তরিত করা হয় অন্য স্কুলে।

আরও পড়ুন- নাগরিকত্ব নিয়ে ভুল বোঝাচ্ছেন মমতা, পাল্টা আক্রমণে নামলেট লকেট

এমনটাই দাবি করেছে স্কুল পড়ুয়াদের। রাজ্যের রাজ্যপাল-কে আমন্ত্রণ জানানো নিয়েই এই বচসার সূত্রপাত। তার জের ভোগ করতে হয় স্কুল পড়ুয়াদের। কারণ তাদের প্রিয় দুই শিক্ষক-কে ছাড়তে হয় স্কুল। এটা কিছুতেই মেনে নিতে পারছে না তারা। এই নিয়ে শুরু হয় প্রতিবাদ। স্কুল পড়ুয়ারা এই প্রতিবাদি বিক্ষোভে অবরোধ করা হয় ডোঙ্গারিয়া বুড়ুল রোডের বিশালক্ষীতলার রাস্তা। তাদের একটাই কথা তাদের দাবি মানতে হবে, নাহলে চলতে থাকবে এই বিক্ষোভ।

বুড়ুল উচ্চমাধ্যমিক হাইস্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের সাফ কথা, তাদের স্কুলের দুই শিক্ষক রতনলাল হালদার ও সুপ্রিয় রায় স্যার-কে ফিরিয়ে আনতে হবে স্কুলে। যতদিন না তাদের এই দুই শিক্ষক স্কুলে ফিরে আসছে ততদিন আন্দলোন চলবে ও ক্লাস বন্ধ থাকবে। একইসঙ্গে বিক্ষোভ চলবে বিশালক্ষীতলার রাস্তা জুড়ে।