বর্তমানে দিঘা থেকে আমফান অবস্থান করছে মাত্র ৬৫ কিলোমিটার দূরে। বুধবার বিকেল থেকে সন্ধ্যের মধ্যেই তা আঁছড়ে পড়বে আমফান। ক্রমেই শক্তি বাড়িয়ে আমফান স্থলভাগে প্রবেশ করতে শুরু করেছে। কলকাতাতে ইতিমধ্যেই হাওয়ার গতিবেগ ৬৯ কিলোমিটার প্রতিঘণ্টায়। ইতিমধ্যেই বৃষ্টি শুরু হয়েছে রাজ্যের একাধিক জেলা সহ শহর কলকাতায়। উপকূলবর্তী এলাকাতে বর্তমানে হাওয়ার গতিবেগ রয়েছে ১৫০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টাতে। বুধবার দুপুর তিনটে নাগাদ সাংবাদিক বৈঠক করা হয় কলকাতা আলিপুর আবহাওয়া দফতর থেকে। 

ক্রমেই এগিয়ে আসছে আমফান। তার জেরে মাঝারি ও ভারী বৃষ্টিপাত ইতিমধ্যেই শুরু হয়েগিয়েছে বেশ কিছু জেলা ও শহরে। এই ঝড় ল্যান্ডফলের পর কলকাতার খুব কাছ দিয়ে বইতে থাকবে। তাই রেড এলার্ট জারি করা হয়েছে কলকাতায়। এই সময় কলকাতা, কলকাতা, হাওয়া ও হুগলিতে ঝড়ের গতিবেগ হবে ১৩০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টায়। উপকূলবর্তী অঞ্চলে এই ঝড় ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি করতে সক্ষম। রাজ্যের অন্তবর্তী জেলাগুলিতে হালকা মাঝারি বৃষ্টিপাত হবে। 

২০ তারিখ দুই বঙ্গেই বৃষ্টি হবে। এদিন রাত থেকে উত্তরবঙ্গে ভারী বর্ষণ হবে। সিকিম সহ উত্তর বঙ্গে এইমধ্যেই জারি করা হয়েছে সতর্কতা। ২০ মালদা ও দুই দিনাজপুরে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস, বৃষ্টি চলবে ২২ তারিখ পর্যন্ত। ঝড়ের দাপট কমবে বৃহস্পতিবার সকালে, তখন তা শক্তিক্ষয় করে দূর্বল হয়ে উঠবে। এরপর তা অতিগভীর নিম্নচাপ হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করবে। সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস আভন্তরীন এলাকাগুলিতে থাকবে ৪-৫ মিটার। সবুজ সংকেট না মেলা পর্যন্ত সমুদ্রে ও নদীতে নামার ওপর জারি করা হয়েছে নিষেধাজ্ঞা।