দীর্ঘদিন ধরেই তাকে ধরার জন্য তক্কে তক্কে ছিল পুলিশ। অবশেষে মুর্শিদাবাদের ফরাক্কা থেকে গ্রেফতার করা হল অস্ত্র পাচারকারী দলের মহিলা পান্ডা ফুরকান বিবি। স্ত্রীকে ধরতে পারলেও একটুর জন্য পুলিশের হাতছাড়া হয় ফুরকানের স্বামী হবিবুর শেখ। 

পুলিশ সূত্রে খবর, এই দম্পতি দীর্ঘ দিন ধরেই মুর্শিদাবাদ জেলায় অস্ত্র কারবার চালাচ্ছিল। মঙ্গলবার মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশের স্পেশ্যাল অপারেশন গ্রুপ এবং ফরাক্কা থানার পুলিশ। ধৃত ওই মহিলা অস্ত্র পাচারকারীর কাছ থেকে ৯টি  অত্যাধুনিক পিস্তল ছাড়াও মোট ২১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়েছে। ধৃত মহিলা অস্ত্র কারবারীকে জেরা করেই তার স্বামীর খোঁজ পাওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ। 

পুলিশ সূত্রে খবর, সম্প্রতি মুর্শিদাবাদ-ঝাড়খণ্ড বর্ডার দিয়ে বড়সড় অস্ত্র মাফিয়াদের মাধ্যমে মুর্শিদাবাদে ব্যাপক হারে অস্ত্র ঢুকতে শুরু করে। এর পরেই পুলিশ ও এসওজি গ্রুপ লাগাতার তল্লাশি শুরু করে। সেই সূত্রেই খোঁজ মেলে ফুরকান এবং তার স্বামীর।  এর পরেই সূত্র মারফত ওই দম্পতির খোঁজ শুরু করে পুলিশ। 

জেলা পুলিশ সুপার শ্রী মুকেশ জানিয়েছেন, লোকসভা ভোটের আগে থেকেই ওই দম্পতির সম্পর্কে খবর ছিল পুলিশের কাছে। মঙ্গলবার ফরাক্কার কাছে৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কের উপর থেকে তাড়া করে ফুরকান বিবিকে প্রথমে গ্রেফতার করা হয়। এর পর ফুরকানকে নিয়ে তার বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ। বাড়ি থেকে ৯টি পিস্তল ও ২১৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়। তার মধ্যে ছিল ইম্প্রভাইজড পুজোও। কিন্তু পুলিশ আসার আগেই বাড়ি ছেড়ে পালায় হাবিবুর।

পুলিশ সূত্রে খবর, ফুরকান বিবির কাছ থেকে মোট ১৫টি গুলির প্যাকেট উদ্ধার হয়েছে। সেই প্যাকেটে দেড়শোটি ৮ এমএম কার্তুজ,বত্রিশটি ৭.৬৫ এমএম কার্তুজ,পঁচিশটি ৯ এমএম কার্তুজ ও বাকি ০.৩০৩ কার্তুজ মেলে। এ ছাড়াও পাঁচটি অত্যাধুনিক ৯এম এম পিস্তল, চারটি দেশি পিস্তল ও দু' টি ম্যাগাজিন ও একটি ফোন পাওয়া গিয়েছে।