দ্বৈপায়ন লালা, মালদহ:  করোনা আতঙ্ক! সদ্যোজাত সন্তানকে হাসপাতালে রেখে এবার উধাও হয়ে গেলেন এক মহিলা। পাঁচদিনের শিশুরও লালারস পরীক্ষা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মালদহে।

আরও পড়ুন: বীরভূমে সরকারি হাসপাতালে ঢুকল করোনাভাইরাস, বন্ধ অপারেশন থিয়েটার-সহ বেশ কয়েকটি বিভাগ

প্রশাসনিক আধিকারিক, পুলিশকর্তা, এমনকী জনপ্রতিনিধিরাও, রেহাই পাচ্ছেন না কেউই। করোনার 'গোষ্ঠী সংক্রমন' ছড়াচ্ছে মালদহে।  শেষ পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, নতুন করে সংক্রমিত হয়েছেন আরও ৮১ জন। সেই হিসেবে জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা এখন সাড়ে চোদ্দোশোরও বেশি। করোনা সংক্রমণের শিকার অতিরিক্ত  জেলাশাসক, ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট, বিডিও, মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সহকারি সুপার-সহ প্রশাসন ও স্বাস্থ্য দপ্তরের শীর্ষ আধিকারিকরাও। পরিস্থিতি মোকাবিলায় শুক্রবার সকাল থেকে সম্পর্ণ লকডাউন চলছে মালদহ শহরে। রবিবার পর্যন্ত ওষুধের দোকান ছাড়া সমস্ত দোকান ও বাজার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। এমনকী, আপাতত অনির্দিষ্টকালের জন্য মালদহ আদালতও বন্ধ রাখার বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় পদক্ষেপ, ফের লকডাউন জারি করা হল শিলিগুড়িতে

জানা গিয়েছে, শনিবার প্রসব যন্ত্রণা নিয়ে মালদহ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি হন এক মহিলা। তাঁর বাড়ি ইংরেজবাজারে। ওই মহিলা কন্যাসন্তানের জন্ম দেন রবিবার। কিন্তু ঘটনা হল, মা হওয়ার পর ওই মহিলার করোনা পজিটিভি রিপোর্ট আসে। ঘটনাটি জানার পর সদ্যোজাত সন্তানকে হাসপাতালে রেখে উধাও হয়ে যান তিনি! শিশুটিকে হাসপাতালে এসএনসিইউ বিভাগে নার্সদের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে। হাসপাতালের তরফে জানানো হয়েছে, ওই শিশুটিরও লালারস বা সোয়া পরীক্ষা করা হবে। যিনি শিশুটির জন্ম দিয়েছেন, তিনি করোনা আতঙ্কে কোয়ারেন্টাইনে চলে গিয়েছেন। পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।