অবশেষে সম্পূর্ণ হল বৃত্ত। বৃহস্পতিবার ভারতীয় জনতা পার্টিতে (BJP) যোগ দিলেন পূরোলী পর্দার শ্রী রাম অর্থাৎ টেলি অভিনেতা অরুণ গোভিল। রামানন্দ সাগর পরিচালিত দুরদর্শনের 'রামায়ণ' টেলি সিরিয়ালে তিনিই ছিলেন ভগবান রামের ভূমিকায়। ৫ রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের ভোটের আগেই তাঁর বিজেপি শিবিরে যোগদান, রাজনৈতিকভাবে খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা। 

এদিন দলে যোগ দিয়েই অরুণ গোভিল বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো কারোর কারোর জয় শ্রীরাম স্লোগানে অ্যালার্জি রয়েছে দেখেই তিনি গেরুয়া শিবিরে যোগ দিলেন। কারণ তাঁর মতে, জয় শ্রীরাম কোনও রাজনৈতিক বা ধর্মীয় স্লোগান নয়, এটা আমাদের দেশের আদর্শ। এই দেশ ভগবান রামের। জয় শ্রীরামের বিরোধিতা যাঁরা করছেন, তাঁদের এই বিষয় বুঝতে হবে। জয় শ্রীরাম স্লোগানের বিরোধিতার মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে দেশ গঠনের ক্ষেত্রে। তিনি আরও জানান, অভিনয়ের মধ্য দিয়ে মানুষকে যা দেওয়ার, তা তাঁর দেওয়া হয়ে গিয়েছে। এখন দেশের কাজ করতে চান।

পর্দার শ্রীরাম বিজেপি-তে যোগ দেওয়া, বিজেপির রাজনৈতিক আকাঙ্ক্ষা পূরণের দারুণ সহায়ক হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী থেকে শুরু করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, জাতীয় সভাপতি জেপপি নাড্ডা-সহ বিজেপির ছোট-বড়-মাঝারি সব নেতা-নেত্রীরাই সবসময় 'জয় শ্রী রাম' স্লোগান দিয়েই ভাষণ শুরু অথবা শেষ করেন। জনগণকে চাগিয়ে তোলার জন্যও তাঁরা এই স্লোগানকেই ব্যবহার করে থাকেন। বাংলায় গত কয়েক বছর আগেও এই স্লোগান ততটা জনপ্রিয় না হলেও, বর্তমানে এই স্লোগান বাংলায় প্রতিষ্ঠা পেয়েছে।

এই অবস্থায় বিজেপির ৪০ তারকা প্রচারকের তালিকায় অরুণ গোভিলের নাম না থাকলেও, বাংলা ভোট প্রচারে বিভিন্ন মঞ্চেই তাঁকে দেখা যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। তবে, কোভিডের বিস্তার আটকাতে লকডাউন ঘোষণা করা না হলে অরুণ গোভিলের এদিনের যোগদানের ঘটনা দেখা যেত কি না, তাই নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের মনে। ১৯৮০-র দশকের শেষদিকে তৈরি রামায়ণ, প্রায় মুছেই গিয়েছিল ভারতীয়দের স্মৃতি থেকে। লকডাউনের সময়, রামায়ণ ফের সম্প্রচারিত হয়। আর এই সিরিয়াল সেই সময় বিশ্বের তাবড় জনপ্রিয় টিভি শো-এর ভিউয়ার রেকর্ড ভেঙে দিয়েছিল। নতুন করে ঘরে ঘরে শ্রীরাম হিসাবে পরিচিতি পেয়েছিলেন অরুন গোভিল। আসন্ন নির্বাচনে টিভি তারকার সেই জনপ্রিয়তাকেই কাজে লাগাতে চাইছে তাঁর দল, এমনটাই মনে করা হচ্ছে।  

আরও পড়ুন - নকশাল দূর্গ ঝাড়গ্রাম এখন বিজেপির ঘাঁটি, কীভাবে জমি তৈরি করে দিয়েছে আরএসএস, দেখুন

আরও পড়ুন - 'ধর্ম'-যুদ্ধ, বিজেপির চক্রবূহে ফেঁসে গিয়েছেন মমতা - এবার দুই কূলই না হারাতে হয়

আরও পড়ুন - নামকরণ, অনুকরণ এবং নাকচ - কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলি নিয়ে কোন খেলায় মেতেছেন মমতা, দেখুন

মজার বিষয় হল, জয় শ্রীরাম স্লোগানকে বিজেপিরও আগে জনপ্রিয় করে তুলেছিল অরুন গোভিলের রামায়ণ সিরিয়ালই। ১৯৯০ -৯২ সালে বিশ্ব-হিন্দু পরিষদ (VHP) যে রাম মন্দির আন্দোলন শুরু করেছিল, সেই সময় থেকেই জয় শ্রীরাম স্লোগান জড়িয়ে গিয়েছিল বিজেপি দলের সঙ্গে। সেই আন্দোলনে লালকৃষ্ণ আদবানি থেকে শুরু করে নরেন্দ্র মোদীর মতো বিজেপি নেতারাও অংশ নিয়েছিলেন। কিন্তু, তারও আগে ভারতের ঘরে ঘরে এই স্লোগানকে পৌঁছে দিয়েছিল রামানন্দ সাগর প্রযোজিত টিভি সিরিয়ালটি। রামায়ণ টিভি সিরিয়ালে হনুমান এবং অন্যান্য চরিত্ররা যুদ্ধের ডাক হিসাবে ব্যবহৃত করতেন এই স্লোগান।