প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সফরের আগেই অসমের রাজনীতিতে বড় রদবদল। এনডিএ ছেড়ে মহাজোটে সামিল হলেন বড়োল্যান্ড পিপলস ফ্রন্ট বা বিপিএফ এর নেতা হাগ্রামা মহিলারি।। শনিবারি তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন জোটে সামিল হয়েও বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করবেন তিনি। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন,বিধানসভার মেয়াদ শেষ না হওয়া পর্যন্ত বিজেপির সঙ্গেই থাকছেন তিনি। তবে গুয়াহাটিতে কংগ্রেস ও শরিক দলের সঙ্গে একটি যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। সেখানে তিনি বলেন বিপিএফ যদি বিজেপির সঙ্গে না থাকে তাহলে গেরুয়া শিবিরের পক্ষে জেতাটা অনেক কঠিন হয়ে যাবে। আর অসমের সাধারণ মানুষ চায় না বিজেপি ক্ষমতায় ফিরুক। তিনি আরও জানিয়েছেন তাঁরা চান শান্তি একতা আর উন্নয়নের জন্য স্থায়ী সরকার আসুক অসমে। কংগ্রেস জোট ক্ষমতায় এলেই সেটা সম্ভব হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। 

২০০৩ সালে তৈরি হয়েছে বিপিএফ। তারপর থেকে এই দলটি অসম রাজনীতিতে যাকে সমর্থন করেছে তারাই ক্ষমতা দখল করেছেন। আগামী দিনে কংগ্রেস জোট ক্ষমতায় আসবে বলেও আশা প্রকাশ করেছেন হাগ্রামা। তবে বিজেপিও জানিয়েছে তারা বিপিএফ-এর সঙ্গে কোনও সম্পর্ক রাখবে না। অসম মন্ত্রিসভায় বিপিএফ-এর তিন জন মন্ত্রী হয়েছে। তাই ভোটের মুখে হাগ্রামার এই সিদ্ধান্ত এনডিএ-র কাছে একটা বড় ধাক্কা বলেও মনে করছে রাজনৈতিক মহল। 


অন্যদিকে সোমবার থেকে অসমে প্রচার শুরু করবেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। সূত্রের খবর প্রিয়াঙ্কা গান্ধী গুয়াহাটির কামাখ্যা মন্দিরে পুজো দেবেন, তারপরই প্রচার শুরু করবেন। তেজপুর সব বেশ কয়েকটি এলাকায় সভা করবেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। যদিও প্রিয়াঙ্কা নিজের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড উত্তর প্রদেশের মধ্যেই সীমাবদ্ধ রাখতে চান। কিন্তু অসম কংগ্রেসের আবেদনে সাড়া দিয়েই তিনি ভোট প্রচারে  উত্তর পূর্বের এই রাজ্যে যেবেন বলেও জানিয়েছেন।