সোমবার সকাল আটটা থেকে চলছে ঝাড়খন্ড বিধানসভা নির্বাচনের ভোট গণনা। বুথ ফেরত সমীক্ষার সঙ্গে নির্বাচনের ফলাফল প্রায় পুরোটাই মিলে যাচ্ছে। বুথ ফেরত সমীক্ষায় ইঙ্গিত ছিল মহারাষ্ট্রের পর আরও একটি রাজ্য হাতছাড়া হতে চলেছে বিজেপির। বেলা সাড়ে এগারোটা পর্যন্ত যে ফলাফলের ট্রেন্ড মিলেছে তাতে বিজেপি-জেভিএম (পি) জোট যে ক্ষমতা হারাতে চলেছে তা অনেকটাই স্পষ্ট। যদিও এটা একেবারে প্রাথমিক গণনার ট্রেন্ড। বেলা বাড়লে অনেককিছুই পাল্টে যেতে পারে।  

এখনও পর্যন্ত ঝাড়খণ্ডের ৮১ আসনের গণনার যে ফল রয়েছে তা অনুযায়ী ২৭টি আসনে এগিয়ে বিজেপি। আর তাদের সহযোগী জেভিএম (পি) এগিয়ে রয়েছে ৫ আসনে। সব মিলিয়ে তাদের এগিয়ে থাকার সংখ্যা ৩২, যা ম্যাজিক সংখ্যা ৪১-এর থেকে অনেকটাই কম।

অন্যদিকে মহাগটবন্ধন বা মহাজোট এঘিয়ে রয়েছে ৪৩টি আসনে। এরমধ্যে জেএমএ এগিয়ে ২৫টিতে, কংগ্রেস ১৩টিতে এবং  আরজেডি ৫টি আসনে।

বিজেপি-জেভিএম (পি) জোট'এর নেতা বাবুলাল মারান্ডি তাঁদের হার মেনে নিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন ভোটের ফল আশানুরূপ হয়নি। তাঁরা জনাদেশ মেনে নিচ্ছেন। জনগণ তাঁদের যে ভূমিকায় দেখতে চান, তাঁরা সেই ভূমিকাই পালন করবেন। সম্পূর্ণ ফলাফল সামনে আসার পরই তাঁরা নিজেদের মধ্য়ে আলোচনা করে পরের পদক্ষেপ ঠিক করবেন। বাবুলাল নিজে ধানওয়ার কেন্দ্র থেকে ২৮৪১ ভোটে এগিয়ে আছেন।   

তবে মহাজোটের নেতা হেমন্ত সোরেন নিজে কিন্তু দুমকা কেন্দ্রে অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছেন। এই কেন্দ্রে প্রথম রাউন্ডের গণনার শেষে বিজেপির লুইস মারান্ডি ৩২০৯ ভোটে এগিয়ে গিয়েছেন। তবে অন্য কেন্দ্রে তিনি ৬৬৪ ভোটে এগিয়ে আছেন।