দশ দিন পার হওয়ার পরেও মহারাষ্ট্রে সরকার গঠন নিয়ে বিজেপি-শিবসেনার মহানাটক শেষ হওয়ার কোনও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। দুই দলের কেউই নিজের অবস্থান থেকে একচুল সরতে রাজি নয়। এই অবস্থায় এই নাটকের যবনিকা টানতে এইবার বিজেপি-র 'বড়দা' অর্থাৎ তাদের নীতি নির্ধারক রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের দ্বারস্থ হল শিবসেনা।

আরএসএস-এর সংঘচালক মোহন ভাগবতকে এই নিয়ে একটি চিঠি লিখলেন শিবসেনা নেতা কিশোর তিওয়ারি। সিবসেনার এই নেতা আবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতিন গড়করির ঘনিষ্ঠ হিসাবে রাজনৈতিক মহলে পরিচিত। চিঠিতে তিনি অভিযোগ করেছেন মহারাষ্ট্রে বিজেপি 'জোট ধর্ম' পালন করছে না। এই বিষয়ে মোহন ভাগবতের হস্তক্ষেপ চেয়েছেন তিওয়ারি।  

মোহন ভাগবতকে লেখা চিঠিতে তিওয়ারি লিখেছেন, বিজেপি-শিবসেনা জোটের পক্ষেই মহারাষ্ট্র জনমত দিয়েছে। কিন্তু বিজেপি 'জোট ধর্ম' অনুসরণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় মহারাষ্ট্রে নতুন সরকার গঠনে বিলম্ব হচ্ছে। তাই এই চিঠি পাওয়ার পর এই বিষয়ে আরএসএস-এর হস্তক্ষেপ করা উচিত এবং বিষয়টি সমাধান করা উচিত।

এই চিঠির বিষয়ে আরএসএস-এর পক্ষ থেকে এখনও কিছু জানানো হয়নি।

মহারাষ্ট্রে ভোটের ফল বের হওয়ার পর থেকেই শিবসেনা দাবি করে আসছে, ভোটের আগেই বিজেপি সাদেরকে ৫০-৫০ সূত্রে ক্ষমতা ভাগাভাগির প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। এর অর্থ মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারেও আড়াই বছর করে দুটি দলের প্রতিনিধি বসবেন। কিন্তু বিজেপি এই বিষয়টি মানতে নারাজ। তাদের বক্তব্য মন্ত্রী সভায় আসন দিতে অসুবিধা নেই কিন্তু মুখ্যমন্ত্রী পাঁচ বছর দেবেন্দ্র ফড়নবিশই থাকবেন।

এর মধ্যে রাজ্যে বাইরে থেকে কংগ্রেসের সমর্থনে সিবসেনা-এনসিপি জোটের সরকার হওয়ার সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে। শেষ পর্যন্ত মোহন ভাগবতের হাতেই এই মহানাটকের পর্দা পড়ে কিনা সেটাই এখন দেখার।