ঋণের বোঝা থেকে মুক্তি পেতে মেনে চলুন এই নিয়মগুলি। কোনও পরিবারেই আর্থিক সমৃদ্ধি নিজে থেকে আসেনা। তার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। সহজেই কাটিয়ে উঠুন এই কঠিন পরিস্থিতি। প্রায় ৫০০০ বছর ধরে বাস্তুবিদ্যা কালের বিরুদ্ধে নিরন্তর সংগ্রামে জয়ী হয়েছে। স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্য শাস্ত্রের সূত্রগুল পরবরতিকালে 'বাস্তুশাস্ত্র' শিরোনামে লিপিবদ্ধ হয়েছে। বৈদিক যুগে স্থাপত্য বিজ্ঞান মূলত মন্দির নির্মাণে ব্যবহৃত হত। পরবর্তীতে তা বিস্তার লাভ করে। প্রাচীন যুগে স্থপতিরা কেবল নিছক রাজমিস্ত্রির ভূমিকা পালন করতেন না, নির্মাণশৈলী ও পরিকল্পনার বিষয়টিও তদারক করতে হত তাঁদের। 

আরও পড়ুন- আর্থিক উন্নতি বৃদ্ধি করতে বৃহস্পতিবার মেনে চলুন এই নিয়মগুলি

বাস্তুশাস্ত্র, এই বাস্তু শব্দটি এসেছে বস্তু থেকে। বাস্তু বলতে সব কিছুকেই বুঝায়- তা একটি স্থান হতে পারে- কিংবা একটা বাড়িও হতে পারে। ভারত উপমহাদেশে প্রায় সভ্যতার সূচনালগ্ন থেকে স্থাপত্য নির্মাণকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। সভ্যতার শুরু থেকেই ভারতীও উপমহাদেশে শিল্পচর্চাকে ঊর্ধ্বে স্থান দেয়া হয়েছে। স্থাপত্যশৈলী উপবেদের অন্যতম বিষয়। স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্যশাস্ত্র চারটি উপবেদের অন্যতম। বর্তমানকালে বাস্তু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আমাদের দৈনন্দিন জীবনে। একই রকমভাবে ঋণ মুক্তিলাভেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

সবার জীবনেই কম-বেশি আর্থিক সমস্যা দেখা দেয়। বাস্তু মতে, কোনও পরিবারেই আর্থিক সমৃদ্ধি নিজে থেকে আসেনা, তার জন্য কিছু নিয়ম মেনে চলতে হয়। তাই আপনিও যদি আর্থিক সমস্যায় ভুগে থাকেন, বা ঋণের বোঝায় ডুবে থাকেন তবে সেখান থেকে বেরিয়ে আসতে হবে আপনাকেই। বাস্তুর কিছু নিয়ম মেনে চললে, সহজেই কাটিয়ে উঠতে পারবেন এই কঠিন পরিস্থিতি। জেনে নেওয়া যাক বাস্তু মতে সেই নিয়মগুলি কী কী-

আরও পড়ুন- নতুন বছরে এই রাশিগুলির রয়েছে সন্তান ধারনের যোগ, আপনার রাশি কি রয়েছে সেই তালিকায়

প্রতিদিন নিয়মিত ঘর-বাড়ি পরিস্কার রাখবেন। ঘরের কোনায় কখনোই ঝুল জমতে দেবেন না। 
সৌভাগ্যলক্ষী তন্ত্রে বলা হয়, যিনি নিয়মিত নিজেকে এবং ঘর-বাড়ি পরিস্কার রাখেন তাদের আর্থিক ভাগ্য সব সময় উন্নত থাকে।
বাস্তু মতে সূর্যাস্তের পর ঘর বাড়ি পরিষ্কার করা উচিত নয়। এতে আপনার বাড়িতে নেগেটিভ শক্তির প্রভাব পড়ে। ফলে অর্থনৈতিক পরিস্থিতিও খারাপ হতে থাকে। 
অনেক সময় রাশিচক্রে দারিদ্র যোগ বা বাস্তু দোষের কারণেও আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়, তখন প্রতিকারের বিশেষ প্রয়োজন।
বুঝে খরচ করুন, চেষ্টা করুন বারতি খরচ এড়িয়ে চলার।
অধিকাংশ বাড়িতেই মহিলারা সারাদিন বাড়ির কাজ করে স্নান সেরে তারপর দুপুরের খাবার খান, কিন্তু বাস্তু মতে সকাল বেলায় বাড়ির মহিলাদের স্নান করে নেওয়া উচিত।
বাড়ির পূর্বদিকে সুগন্ধি সাদা ফুলের গাছ লাগাবেন। 
সারা বছরে অন্তত একটি পূর্ণিমায় নারায়ণের পূজোয় সিন্নি দেবেন। 
এই নিয়মগুলি মেনে চললেই পরিবারের মঙ্গল হয় এবং ঋণ মুক্তি ঘটে।
এই নিয়মগুলি মেনে চললেই, পরিবারে সুখ শান্তি বজায় থাকার পাশাপাশি আর্থিক অবস্থারও উন্নতি হবে।  আর আর্থিক উন্নতি হলেই ঋণমুক্তি ঘটবে।