বিয়ে হল একটি সামাজিক বন্ধন যাতে দুটি মানুষ পরস্পর পরস্পরের প্রতি দায়বদ্ধ থাকে। বাংলার আগামী মাস অগ্রহায়ণ মাস। অগ্রহায়ণ বা অঘ্রান বাংলা সনের অষ্টম এবং শকাব্দের নবম মাস। প্রাচীন বাংলা ভাষায় এই মাসটিকে আঘন নামে চিহ্নিত করা হত। বিভিন্ন দেশে সংস্কৃতিভেদে বিবাহের সংজ্ঞার তারতম্য থাকলেও সাধারণ ভাবে বিবাহ এমন একটি রীতি যার মাধ্যমে দু'জন মানুষের মধ্যে সম্পর্ক ও সামাজিক স্বীকৃতি লাভ করে। 

আরও পড়ুন- সোমবারের সারাদিন কেমন কাটবে আপনার, দেখে নিন রাশিফল

উচ্চবর্ণীয় হিন্দু সমাজের বিবাহে প্রধানত দুইটি আচারগত বিভাগ লক্ষিত হয়। যথা, বৈদিক ও লৌকিক। লৌকিক আচারগুলি "স্ত্রী আচার" নামে পরিচিত। বৈদিক আচারগুলির মধ্যে অবশ্য পালনীয় প্রথাগুলি হল কুশণ্ডিকা, লাজহোম, সপ্তপদী গমন, পাণিগ্রহণ, ধৃতিহোম ও চতুর্থী হোম। বৈদিক আচারগুলির সঙ্গে লৌকিক আচারগুলির কোনো সম্পর্ক নেই। লৌকিক আচারগুলি অঞ্চল, বর্ণ বা উপবর্ণভেদে এক এক প্রকার হয়। তবে সনাতন হিন্দু ধর্ম অনুযায়ী।

আরও পড়ুন- শাস্ত্র মতে, বিয়ের জন্য শ্রেষ্ট এই তিন রাশির মেয়ে

বিয়ে একটি অত্যন্ত পবিত্র বন্ধন। মনে করা হয় দুটি মানুষের এই বন্ধন জন্মজন্মান্তরের। নতুন জীবন শুরু করার সময়ে প্রত্যেক পরিবার নতুন বর ও বধূকে কিছু না কিছু উপহার দেন। বাস্তু শাস্ত্র অনুযায়ী কয়েকটি এমন জিনিস রয়েছে যা, বিয়েতে তত্ত্ব হিসেবে পাঠানো  একেবারেই শুভ নয়। রইল এমন কিছু তালিকা যা ভুলেও দেবেনা বিয়ের তত্ত্বে।

কালো রং এর পোশাক- বিয়েতে কালো রং এর পোশাক-কে অশুভ বলে মনে করা হয়। বিশেষ করে নতুন বর ও বউ-এর জন্য। তাই নতুন জীবন শুরু করার সময়ে নতুন বর-বউ এর জন্য কোনও ভাবেই কালো রং এর পোশাক তত্ত্বে দেওয়া উচিৎ নয়।

আরও পড়ুন- চটজলদি বিয়ের প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে, এক নজরে দেখে নিন অগ্রহায়ণ মাসের বিয়ের তারিখগুলি

পুরনো জামা কাপড় বা জিনিসপত্র- পছন্দের হলেও পুরনো কোনও জামা-কাপড় বা জিনিসপত্র বিয়ের তত্ত্বে দেওয়া একেবারেই উচিত নয়। পুরনো কোনও জিনিস যদি নেওযারই হয় তবে তা সঙ্গে করে নিয়ে যাওয়াই ভাল। তত্ত্বে কোনও পুরনো পোশাক রাখা অশুভ বলে মনে করেন বাস্তু বিশারদরা।

সূঁচ-সুতো- মনে করা হয় তত্ত্বে সূচ-সুতো না দেওয়াই ভাল। কারণ বাস্তু মতে, সূঁচ-সুতো অশুভ শক্তি বয়ে আনে বলেও মনে করা হয়। তাই শুভ কাজে অশুভ ইঙ্গিতবাহী কোনও জিনিস না দেওয়াই ভাল। 

ছুরি বা কাঁটা চামচ জাতীয় বস্তু- বিয়ের পর সংসারের কাজে লাগবে এমন ভেবে পরিবারের কেউ যদি এমন কোনও জিনিস তত্ত্বে দিয়ে থাকেন, তবে তা বাদ দিন এখনই। এই জিনিসগুলিও খুব অশুভ বলে মনে করা হয়। 

কাঁচি– একইভাবে বিয়ের তত্ত্বে কাঁচি দেওয়া একেবারেই উচিত নয়, এই ধরনের জিনিসগুলি দিলে অশুভ কিছু ঘটতে পারে বলে মনে করা হয়।

আচার-জাতীয় খাবার– অনেকে আছেন যারা আচার খেতে খুবই ভালবাসেন। বিশেষ করে কোনও বয়ঃজ্যেষ্ঠ্য দিদিমা বা ঠাকুমার হাতে বানানো আচার। কিন্তু প্রিয় হলেও বিয়ের সময়ে উপহার-স্বরূপ আচার-জাতীয় খাবার না নিয়ে যাওয়াই উচিত।