হিন্দু ধর্মাবলম্বী স্বীয় ধর্মমতকে সনাতন ধর্ম নামেও অভিহিত করেন। হিন্দুধর্ম সারা পৃথিবীব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এক সনাতন ধর্ম। এই ধর্মের কোনও একক প্রতিষ্ঠাতা নেই। অনাদি কাল থেকে এই পরম্পরা চলে আসছে। লৌহযুগীয় ভারতের ঐতিহাসিক বৈদিক ধর্মে এই ধর্মের শিকড় নিবদ্ধ। হিন্দুধর্মকে বিশ্বের "প্রাচীনতম জীবিত ধর্মবিশ্বাস" বা "প্রাচীনতম জীবিত প্রধাণ মতবাদ" হিসেবে আখ্যা দেওয়া হয়। হিন্দু বিশ্বাস অনুযায়ী গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হিসেবে আছে পুরুষার্থ, যা মানব জীবনের সঠিক উদ্দেশ্য। এর মধ্যে আছে ধর্ম, অর্থ, কাম এবং মোক্ষ যার অর্থ, জন্ম মৃত্যুর পুন: পুন: জন্ম, কর্ম এবং বিভিন্ন ধরনের যোগ সাধনা।

আরও পড়ুন- নতুন বছরে সাড়ে সাতির যোগ, জেনে নিন রাশি অনুযায়ী কোন সময়ে কেমন পভাব

এই সনাতন হিন্দু ধর্ম অনুসারে,  ঘরের দেবতার সামনে প্রদীপ জ্বালানো অত্যন্ত শুভ কাজ। এর ফলে লাভ হয় অশেষ পুণ্য। কোনও গৃহস্থ বাড়িতে এই কাজ করলে, সেই পরিবারের দুর্ভাগ্য দূরীভূত হয়। জেনে নিন কোন উপায়ে প্রদীপ জ্বালালে আপনার ও আপনার পরিবারের ভাগ্য সুন্দর হয়ে উঠতে পারে—

আরও পড়ুন- বৈশাখের প্রথম শনিবারে বজরঙ্গবলির পুজো করুন, পাঠ করুন হনুমান চল্লিশা

প্রতি সন্ধ্যেয় ঠাকুরঘরে ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালিয়ে ১০৮ বার জপ করুন মন্ত্র। 
মন্ত্রটি হল ‘ওম হিং ক্রিং কমলে কমলালয়ে প্রসিদ শ্রীং হৃং শ্রীং ওম মহালক্ষ্ময়ে নমঃ’।
কোনও স্ত্রী এই কাজ করলে তাঁর স্বামীর জীবনে সৌভাগ্যের উদয় হয়। 
সোম ও শনি ভৈরবের মন্দিরে সরষের তেলের প্রদীপ জ্বালালে শত্রুর হাত থেকে রক্ষা পাবেন। 
রোজ সকালে সূর্যকে জল-চন্দন ও প্রদীপ দিয়ে আরতি করলে পারিবারিক ও সামাজিক সম্মান লাভ হয়।  
দাম্পত্য কলহে জেরবার যাঁরা, তাঁরাও সুফল পেতে পারেন প্রদীপ জ্বালিয়ে।
রোজ সকাল ও সন্ধ্যেয় ঠাকুর ঘরে ঘিয়ের প্রদীপ জ্বালালে আর্থিক সমস্যাও দূর হয়।