কোনও ব্যক্তির ব্যক্তিত্বের ব্যাখ্যা করার জন্য এবং তার জন্মের সময় সূর্য, চন্দ্র, এবং অন্যান্য জ্যোতিষ্কগুলির অবস্থানের উপর ভিত্তি করে তার জীবনের ভবিষ্যদ্বাণী করার জন্য ব্যবহৃত হয় জ্যোতিষশাস্ত্রে। জ্যোতিষশাস্ত্র অতি প্রাচীন এবং এটি বিভিন্ন সময়ে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তে বিভিন্ন সভ্যতার মানবগোষ্ঠির দ্বারা চর্চিত, পরিবর্তিত ও পরিবর্ধিত হয়েছে। তাই কোন একটি বিশেষ সময়কে জ্যোতিষশাস্ত্রের সৃষ্টিকাল হিসেবে চিহ্নিত করা যুক্তিযুক্ত নয়। এই জ্যোতিষশাস্ত্র মতে আপনার নিজেইন বজায় রাখতে পারেন আপনার সৌভাগ্য।  

আরও পড়ুন- জন্মছকে বুধের প্রভাব, জ্যোতিষ মতে জানুন কোন দিকে ঘটে পরিবর্তন

কঠিন পরিশ্রম ও মেহনতের পর  একজন মানুষ জীবনে সাফল্য লাভ করে। আর জীবনে সাফল্য আসা মানেই সৌভাগ্য আপনার হাতের মুঠোয়। কিন্তু জ্যোতিষ ও বাস্তু শাস্ত্র মতে বলা হয় যে, সৌভাগ্য যদি ধরে রাখতে চান তাহলে কয়েকটি জিনিস সব সময় সঙ্গে রাখা প্রয়োজন। জেনে নেওয়া যাক, বাস্তু শাস্ত্রমতে কোন জিনিসগুলি আপনার সঙ্গে রাখলে সৌভাগ্য সবসময় আপনার সঙ্গে থাকবে। 

আরও পড়ন- বৈশাখ মাস কেমন প্রভাব ফেলবে সিংহ রাশির উপর, দেখে নিন

বাস্তুমতে জীবন সম্পূর্ণতার প্রতীক হল ত্রিভুজাকৃতি। তাই হাতের মুঠোয় সৌভাগ্যকে ধরে রাখতে ধাতুর তৈরি ত্রিভুজাকৃতি গহনা বা অলংকার ধারন করুন। সমস্যা কাটিয়ে সৌভাগ্য ফিরে পাবেন সহজেই। চাকরী বা পরীক্ষামূলক কোনও সমস্যা কাটিয়ে সৌভাগ্য ফিরে পেতে সঙ্গে রাখুন অশত্থ পাতা। প্রেম জীবনে বা সংসার সম্পর্কিত কোনও সমস্যা থাকলে ময়ূরের পালক সঙ্গে রাখুন। বাস্তু শাস্ত্রমতে ঘোড়ার খুর রাখলে, তা জীবনে সৌভাগ্য বয়ে আনে, এই টোটকা অনেকেরই জানা। তাই অনেকে বাড়িতে এই ঘোড়ার খুর দেখা যায়। তবে এটি বাড়িতে রাখলেই হবে না শনিবার বাড়ির দক্ষিণ দেওয়ালে রাখতে হবে এই খুর। যদি সম্ভন হয়, তাহলে এই ঘোড়ার খুরের খানিকটা অংশ সঙ্গে রাখুন, ভাগ্য ফিরবেই। বাস্তু মতে, এই জিনি, শনির দশা কাটাতেও দারুন কাজ করে। আবার অনেকেই হয়তো জানা যে, একটি সাদা পাথর অংটি হিসেবে বা অলংকার হিসেবে ধারণ করতে পারলে খুব সহজেই অবসাদগ্রস্ততা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। তা সে সাদা রং এর পাথর হোক বা মানসিক চাঞ্চল্য ও উদ্বেগ কাটিয়ে ওঠা যায় সহজেই।