বাস্তুশাস্ত্র শব্দটি এসেছে বস্তু থেকে। বাস্তু বলতে সব কিছুকেই বুঝায়- তা একটি স্থান হতে পারে- কিংবা একটা বাড়িও হতে পারে। ভারত উপমহাদেশে প্রায় সভ্যতার সূচনালগ্ন থেকে স্থাপত্য নির্মাণকে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। সভ্যতার শুরু থেকেই ভারতীও উপমহাদেশে শিল্পচর্চাকে ঊর্ধ্বে স্থান দেয়া হয়েছে। স্থাপত্যশৈলী উপবেদের অন্যতম বিষয়। স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্যশাস্ত্র চারটি উপবেদের অন্যতম। প্রায় ৫০০০ বছর ধরে বাস্তুবিদ্যা কালের বিরুদ্ধে নিরন্তর সংগ্রামে জয়ী হয়েছে। স্থাপত্য উপবেদ বা স্থাপত্য শাস্ত্রের সূত্রগুলো পরবর্তীকালে 'বাস্তুশাস্ত্র' শিরোনামে লিপিবদ্ধ হয়েছে। পরবর্তীতে তা বিস্তার লাভ করে। প্রাচীন যুগে স্থপতিরা কেবল নিছক তৈরির কাজ করতেন না, নির্মাণশৈলী ও পরিকল্পনার বিষয়টিও তদারক করতে হত তাঁদের। 

আরও পড়ুন- জীবনে চরম বিপর্যয়ের থেকে রক্ষা পেতে, গ্রহ শান্তির কিছু উপায় জেনে নিন

জীবনে বাস্তুশাস্ত্রের গুরুত্ব অপরিসীম। বাস্তু না মানলে জীবনে নানা অশুভ প্রভাব ঘটতে পারে বলে মনে করেন বাস্তুবিশারদরা। তবে অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় বাস্তু মেনে বাড়ি বানিয়েও দেখা যায় জীবন সমস্যা সংকুল হয়ে উঠছে। তখন মনে প্রশ্ন জাগতেই পারে যে বাস্তুশাস্ত্র মেনে চলা সত্ত্বেও কেন জীবন অসহনীয় হয়ে উঠছে কেন? এর কারণ হল প্রতিদিনের কাজে আমরা অজান্তেই এমন কিছু কাজ করে ফেলি যার কুপ্রভাব পড়ে আমাদের জীবনে। আমাদের জীবনে বাস্তু একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বহন করে। জীবনে উন্নতির সঙ্গে বাস্তুর সম্পর্ক জড়িত বলে মনে করেন বাস্তুবিশারদরা। তাই ব্যবসা ক্ষেত্রেও সার্বিক উন্নতির জন্য বাস্তু সংক্রান্ত কিছু নিয়ম পালন করা উচিত। জেনে নেওয়া যাক ব্যবসায় উন্নতির জন্য বাস্তুর নিয়মগুলি।

আরও পড়ুন- কোন দিনে কোন খাবার শুভ ফল দেয়, এই বিষয়ে জেনে নিন জ্যোতিষের মতামত

দোকানের প্রবেশ পথ যদি দক্ষিন পশ্চিম কোনে হয় তবে সেই সমস্ত দোকান বা ব্যবসা ১৫ থেকে ২০ বছর চলার পর থমকে যাবে। তাই বাস্তুমতে, দোকানে  উত্তর ও পূর্ব দিকে প্রবেশ দ্বার থাকলে শুভ। ব্যবসার জিনিসপত্র রাখার জন্য যে সব আলমারি, শো কেশ ব্যবহার করা হয় তা দক্ষিণ ও পশ্চিম দিকে রাখা উচিৎ। দোকানের মালিকের বসার জায়গা পূর্ব বা উত্তরমুখী এবং খরিদ্দারের আসন পশ্চিম ও দক্ষিণমুখী হওয়া উচিৎ। দোকানে জল রাখার জায়গা হওয়া উচিৎ ঈশান কোনে অর্থাৎ উত্তর-পূর্ব কোনে। দোকানে যেসব জিনিসপত্রের বিক্রি বেশি তা বায়ুকোনে রাখলে শুভ। দোকানের মেন সুইচ ও সুইচ বোর্ড অগ্নিকোনে অর্থাৎ দক্ষিন-পূর্ব দিকে রাখলে শুভ। পাশাপাশি ব্যবসার টাকা রাখার স্থান সব সময় যেন দক্ষিণ দিকে থাকে এবং মুখটা উত্তরদিকে খোলে এমন স্থানে রাখা প্রয়োজন। পূর্ব ও পশ্চিম দিকে খোলে অর্থাৎ দক্ষিণদিকে একদমই রাখা উচিৎ নয়।