দোল পূর্ণিমা বা ফাল্গুনী পূর্ণিমার এই তিথির যোগ রয়েছে। সোমবার ৯ মার্চ মঙ্গলবার এবং ১০ মার্চ দোল ও পরদিন হোলি উৎসব পালিত হবে। সেই মতন রবিবার ও সোমবার হবে হোলিকা দহন বা ন্যাড়াপোড়া। তবে, এই বছরটিতে দোলের এই বিশেষ তিথি বা যোগ যা ৪৯৯ বছর পরে তৈরি হয়েছে। এই বছর, দোল ও হোলি শনি ও বৃহস্পতি গ্রহের উপর বিশেষভাবে প্রভাব তৈরি করবে। এই দুটি গ্রহ তাদের নিজ নিজ রাশির চিহ্নগুলিতে থাকবে। মার্চ শেষে, বৃহস্পতিও তার রাশির জাতক ধনু ছেড়ে মকর দিয়ে শনিতে প্রবেশ করবে।

আরও পড়ুন- এই মাস কেমন প্রভাব ফেলবে ধনু রাশির উপর, দেখে নিন

আরও পড়ুন- অধিবর্ষ বা লিপইয়ার ১২টি রাশির উপর কেমন প্রভাব ফেলবে, দেখে নিন রাশিফল

বিশেষজ্ঞদের মতে, ৯ মার্চ, বৃহস্পতি তাঁর ধনু রাশিতে থাকবেন এবং শনিও মকর রাশির নিজের ঘরে থাকবেন। এর আগে, এই দুটি গ্রহের সমষ্টি ৩ মার্চ ১৫২১ সালে এই যোগ হয়েছিল। তারপরেও এই উভয় গ্রহই তাদের নিজ নিজ রাশিতে ছিল। দোলের শুভ তিথিতে শুক্র গ্রহ মেষ রাশিতে, মঙ্গল ও কেতু, মিথুনের রাহু, কুম্ভের মধ্যে সূর্য ও বুধ, চন্দ্র সিংহতে থাকবে। এই যৌগিক গ্রহে দোলের আগমনের সঙ্গে সঙ্গে এটি শুভ ফলাফল দেবে। এই ধরণের যোগ দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠায় সফল হবে। এই যোগ ব্যবসায়ের পক্ষে অত্যন্ত শুভ এবং উপকারী। দেশে ও দশে জনগণের দ্বন্দ্বের অবসান ঘটবে। প্রতি বছর দোল উৎসব উদযাপনের সয়ম সূর্য কুম্ভ রাশিতে থাকে এবং চাঁদ সিংহ রাশিতে থাকে।

আরও পড়ুন- কেমন কাটবে শনিবার সারাদিন, দেখে নিন আজকের রাশিফল

৩ মার্চ থেকে শুরু হবে এই বিশেষ উৎসবের শুভ যোগ। যাকে বলা হয় হোলি শতাক। দোল উৎসবের আগে ২ মার্চ মঙ্গলবার শুরু হবে এই যোগের শুভারম্ভ। অষ্টমী তিথি থেকে ফাল্গুন মাসের শুক্লপক্ষের পূর্ণিমা অবধি রয়েছে এই শুভ যোগ। এই বিরল ও শুভ দিনগুলিতে, উপাসনা এবং দান করার একটি বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। দোলের আগের দহন ক্রিয়ার ফলে সমস্ত নেগেটিভ শক্তিকে পুড়িয়ে তারপর শুভ যোগের সূচণা হয়।