চন্দ্রগ্রহণ তিন ধরণের হয় - পূর্নগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ, আংশিক চন্দ্রগ্রহণ এবং উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ। একটি পূর্ণিমা চলাকালীন, যখন পৃথিবী সূর্য ও চাঁদের মাঝে আসে তখন এটি সূর্যের রশ্মিকে সরাসরি চাঁদে পৌঁছতে বাধা দেয়। এটি চাঁদের উপর একটি ছায়া সৃষ্টি করে যা চন্দ্রগ্রহণ হিসাবে পরিচিত।

আমরা ইতিমধ্যে বছরের বা এই শতাব্দীর প্রথম চন্দ্রগ্রহণ হয়েছিল জানুয়ারি মাসে। আগামী কাল অর্থাৎ ৫ জুনের চন্দ্রগ্রহণ হল বছরের দ্বিতীয় চন্দ্রগ্রহণ। এই চন্দ্রগ্রহণহবে উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ। সূর্য, পৃথিবী এবং চাঁদ অসম্পূর্ণভাবে একত্রিত হয় তখন এই উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণ ঘটে। এই ক্ষেত্রে, পৃথিবী সূর্যের আলোকে কিছুটা ছায়ার বাইরের অংশের সঙ্গে সরাসরি চাঁদে পৌঁছতে বাধা দেয়, এটি পেনুমব্রা একলিপ্স নামেও পরিচিত। যেহেতু উপচ্ছায়া পৃথিবীর ছায়ার অন্ধকার চেয়ে অনেক বেশি ম্লান, তাই একটি উপচ্ছায়া চন্দ্রগ্রহণগ্রহণ। চাঁদ যখন পৃথিবীর ছায়ার বাইরের অংশের মধ্যে চলে যায়, তখন আমরা পৃথিবী থেকে এই চন্দ্রগ্রহণ প্রত্যক্ষ করি।

৫ জুন ২০২০ শুক্রবার এই গ্রহণটি দেখা যাবে। ভারতীয় সময় অনুযায়ী রাত ১১ টাবেজে ১৫ মিনিটে শুরু হবে এই গ্রহণ।  রাত ১২.৩০ টা নাগাদই চাঁদের ওপর গ্রহণের প্রভাব পড়বে বেশিমাত্রায় ৷ এই চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে এশিয়ার বেশিরভাগ দেশ, ইউরোপ ও আফ্রিকা থেকে ৷ শেষ হবে ৬ জুন শনিবার রাত ২ টো বেজে ৩৪ মিনিট পর্যন্ত। এটি ছাড়াও, ২০২০ সালে আরও দুটি চন্দ্রগ্রহণ রেখেছে। একটি  জুলাই মাসে এবং বছরের শেষ চন্দ্রগ্রহণ হবে নভেম্বর মাসে হবে।